advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 39 মিনিট আগে

শেরপুরের নকলা পৌরসভার এক শিক্ষিকার মাথার চুল কেটে শারীরিক নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। নির্যাতিত ওই নারীর নাম শাহনাজ পারভীন (৩৭)। তিনি পৌরসভার চরকৈয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত আছেন। অভিযুক্ত স্বামী হাবিবুর রহমান। 

husband arrest sherpur

স্ত্রীকে নির্মম নির্যাতনের এই ঘটনায় শনিবার হাবিবুরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হাবিবুর রহমান উপজেলার বানেশ্বর্দী ইউনিয়নের কবুতরমারি গ্রামের মৃত অজিত মাস্টারের ছেলে। নির্যাতিতা শিক্ষিকা বর্তমানে নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১০ নাম্বার বেডে চিকিৎসাধীন আছেন।

স্কুলশিক্ষিকা শাহনাজ পারভীন জানান, প্রায় ৪ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। প্রথমদিকে সুখের সংসার থাকলেও দ্বিতীয় বছর থেকে টাকার জন্য শারীরিক নির্যাতন করে হাবিবুর। এভাবে তাকে তিন বছর ধরে নির্যাতন করা হচ্ছে। মাসের বেতন তুলে টাকা দিলে ভালো আর না দিলেই শুরু হয় অমানুষিক নির্যাতন।

শাহনাজ পারভীন জানান, গত বৃহস্পতিবার তার স্বামী কাছে টাকা চায়। এসময় তিনি টাকা দিতে না চাইলে করলে তাকে মাথার চুল কেটে দেয়া হয়। এ সময় লাঠি দিয়ে গুরুতর আঘাত করা হয়। তিনদিন ধরে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। পরে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলে শনিবার ভোরে স্বামী হাবিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শেরপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. আমিনুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পাওয়া মাত্রই আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। অভিযান চালিয়ে আসামিকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে।

sheikh mujib 2020