advertisement
আপনি দেখছেন

স্পেনে অনুষ্ঠেয় ‘রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের ২৫তম বার্ষিক শীর্ষ সম্মেলনে’ (কপ২৫) যোগ দিতে মাদ্রিদের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশনের ২৫তম বার্ষিক সম্মেলনটি ২-১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত হবে।

pm hasina 5প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

রবিবার সকাল সোয়া ১০টায় প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইট মাদ্রিদের উদ্দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেছে।

বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটে (স্পেন সময়) বিমানটি মাদ্রিদ টোরেজোন বিমানবন্দরে অবতরণ করার কথা রয়েছে। বিমানবন্দরে রাষ্ট্রদূত ও বিশ্ব পর্যটন সংস্থায় নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি হাসান মাহমুদ খন্দকার প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন।

সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী ফিরিয়া দে মাদ্রিদে ‘কপ২৫’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। পরে তিনি কপ-২৫’র ওয়ার্কিং সেশনে যোগ দেবেন এবং নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন।

শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিক মধ্যাহ্ন ভোজে অংশগ্রহণ করবেন এবং আবার ওয়ার্কিং সেশনে যোগ দেবেন। বিকালে প্রধানমন্ত্রী স্পেনের প্রেসিডেন্ট পেড্রো সানচেজের সঙ্গে আরেকটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন।

সন্ধ্যায় তিনি রয়েল প্যালেসে স্পেনের কিং ও কুইন আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

cop25 2019স্পেনে অনুষ্ঠেয় ‘রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের ২৫তম বার্ষিক শীর্ষ সম্মেলন’ (কপ২৫)

গত বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে উদ্ভূত প্রতিকূলতাকে জয় করে সহনশীল অর্থনীতি হিসেবে নিজেদের অবস্থান তৈরি করতে বাংলাদেশ যেসব ভবিষ্যত কর্মকৌশল গ্রহণ করেছে তা মাদ্রিদ জলবায়ু সম্মেলনে তুলে ধরা হবে। সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর অংশগ্রহণের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশের দৃঢ় অঙ্গীকারের কথা বিশ্ব দরবারে আরও একবার তুলে ধরা সম্ভব হবে, যা বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল ও জলবায়ু ঝূঁকিপূর্ণ দেশের জন্য বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। প্রধানমন্ত্রী ২ ডিসেম্বর রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সভায় যোগ দিয়ে জলবায়ু পরিবর্তন ও বাংলাদেশের অবস্থান বিষয়ে বক্তব্য দেবেন। তিনি জলবায়ু বিষয়ে বাংলাদেশের নেয়া পদক্ষেপগুলো তুলে ধরার পাশাপাশি জলবায়ু সংক্রান্ত আলোচনায় ‘লস অ্যান্ড ড্যামেজ’-এর প্রতি গুরুত্বারোপ এবং ‘ওয়ারশ ইন্টারন্যাশনাল মেকানিজম’-এর ম্যান্ডেট আরও শক্তিশালী করার মাধ্যমে আর্থিক ক্ষতিপূরণের বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য বিশ্ব নেতাদের আহ্বান জানাবেন।

৩ ডিসেম্বর বিশেষ বিমানযোগে প্রধানমন্ত্রী দেশের উদ্দেশে মাদ্রিদ ত্যাগ করবেন। বিমানবন্দরে তাকে বিদায় জানাবেন রাষ্ট্রদূত ও বিশ্ব পর্যটন সংস্থায় নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি হাসান মাহমুদ খন্দকার।

বুধবার রাত ১২টা ৪০ মিনিটে (বাংলাদেশ সময়) বিমানটির হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। ইউএনবি।