advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 57 মিনিট আগে

সীতাকুণ্ডে চিকিৎসা করাতে এসে চোখের সামনে দুর্ঘটনার শিকার একমাত্র ছেলের লাশ নিয়ে বাড়ি ফিরলেন এক মা। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অভ্যন্তরে এ মর্মন্তিক ঘটনাটি ঘটে।

siyam bodyসীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অভ্যন্তরে দুর্ঘটনায় নিহত শিশু মো. জিহাদুল ইসলাম সিয়াম (৪)

নিহত শিশু মো. জিহাদুল ইসলাম সিয়াম (৪) পৌর এলাকার ৫নং ওয়ার্ডের মৌলভীপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ক্যাবল মিস্ত্রি কামরুল হাসান ও আলেয়া আক্তার সোনিয়ার একমাত্র ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, দুপুরে স্বামী, সন্তান ও মায়ের সঙ্গে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহির্বিভাগে ডাক্তার দেখাতে আসেন আলেয়া আক্তার। ডাক্তার দেখানো শেষে হাসপাতালের গেট দিয়ে বের হচ্ছিলেন তারা। এ সময় হাসপাতালের চিকিৎসক প্রিয়াঙ্কা চৌধুরীকে নামিয়ে দিয়ে যাওয়া গাড়ির নিচে পিষ্ট হয়ে মারা যায় সিয়াম।

এ ঘটনার একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, গাড়িটি হাসপাতালের গেট বরাবর আসলে সিয়াম তার মায়ের হাত ছেড়ে রাস্তার অপর পাশে দাঁড়িয়ে থাকা নানির দিকে দৌড় দেয়। এ সময় চালক গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে পরিবারের সদস্যদের সামনেই চাকার নিচে পিষ্ট হয় শিশুটি। পরে তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তবে এ দুর্ঘটনায় কোন মামলা দায়ের করবেন না বলে জানান নিহতের চাচা ইমরান হোসন।

এ বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে চিকিৎসক প্রিয়াঙ্কা চৌধুরী বলেন, সিয়ামের সমবয়সী তারও একটি সন্তান আছে। শিশুটির এমন মর্মান্তিক মৃত্যুতে তিনি খুবই ব্যথিত ও মর্মাহত।

সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, এ বিষয়ে শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে কোন লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেয়ে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হতে পারে।

sheikh mujib 2020