advertisement
আপনি দেখছেন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশ এখন নেতা উৎপাদনের কারখানায় পরিণত হয়েছে। কর্মী উৎপাদন কমে গেছে। মঙ্গলবার নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

kader norail conferenceবক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

ওবায়দুল কাদের বলেন, আগে দলে কর্মীর সংখ্যা বেশি ছিল, এখন সময় পাল্টে গেছে। এখন নেতার সংখ্যা বেশি হয়ে গেছে। যেসব নেতা নিয়োগ বাণিজ্য করে তারাই কর্মীদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে।

তিনি বলেন, বিতর্কিতদের দলে আনা যাবে না। আওয়ামী লীগে হায়ার করা কর্মীদের দরকার নেই। ত্যাগী নেতা-কর্মীদের বাদ দিয়ে আত্মীয়স্বজনকে আওয়ামী লীগের কমিটিতে আনা চলবে না। ত্যাগী দলীয় নেতা-কর্মীদের কোনোভাবেই কোনঠাসা করা চলবে না। দুঃসময়ের কান্ডারি কর্মীদের যথাযথ মূল্যায়ন করে দলে তাদের যথাযথ ঠাঁই দিতে হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, দুর্নীতিবাজরা সরকারের নজরদারিতে আছে। দলে শুদ্ধি অভিযান চলছে। দুর্নীতিবাজদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না, সময়মতো তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘দুর্নীতিকে না বলুন, সন্ত্রাসকে না বলুন, মাদককে না বলুন, টেন্ডারবাজিকে না বলুন, চাঁদাবাজিকে না বলুন।’

এসময় দলীয় সভা-সমাবেশে ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন, তোরণ কম বানিয়ে সেই টাকা অসহায় ও দুঃস্থ নেতা-কর্মীদের পেছনে ব্যয় করার পরামর্শ দেন তিনি।

সম্মেলন শেষে নতুন কমিটির সভাপতি হিসেবে বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন খান নিলুর নাম ঘোষণা করেন ওবায়দুল কাদের। ইউএনবি।