advertisement
আপনি দেখছেন

সন্দেহভাজন দুই জঙ্গিকে ইতালি থেকে বহিষ্কারের কথা জানিয়েছে দেশটির সরকার। তাদের মধ্যে একজন বাংলাদেশি ইমাম বলে জানা গেছে, তার নাম জুনায়েদ আহমেদ (১৯)। তিনি ভেনিসের কাছে পাডুয়া অঞ্চলের ইসলামিক কালচারাল সেন্টারে কর্মরত ছিলেন। এর আগে গত আগস্টে তাকে আটক করে স্থানীয় পুলিশ।

zunayad ahmedবহিষ্কৃত ইমাম জুনায়েদ আহমেদ

ডয়চে ভেলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, জুনায়েদ আহমেদ ইমামতির পাশাপাশি মসজিদে শিশুদের ধর্মীয় শিক্ষা দিতেন। তার বিরুদ্ধে জঙ্গি তৎপরতা ছাড়াও শিক্ষার্থী শিশুদের শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ আনা হয়েছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এপি জানায়, বাংলাদেশি এক ইমামকে ভেনিসের পাডুয়া থেকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে কোরআন শিখতে আসা শিশুদের বেত দিয়ে পেটানোর অভিযোগ রয়েছে, যা ইতালির আইন-বিরোধী।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, গত অক্টোবর মাসে বহিষ্কৃত বাংলাদেশি ইমামকে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে আটক করে পুলিশ। কোরআন শিক্ষা নিতে আসা ৫-১০ বছরের শিশুদের বেত্রাঘাত করার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়। পুলিশের তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মিলেছে।

এ বিষয়ে রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর এরফানুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তার বৈধ পাসপোর্ট থাকলে পুলিশ হয়তো দূতাবাসকে নাও জানাতে পারে। তবে পাসপোর্ট না থাকলে হয়তো তাকে দেশে পাঠাতে হলে অবশ্যই দূতাবাসের টিটি নিতে হবে।

এদিকে সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ইতালি থেকে মরোক্কোর এক নাগরিককেও বহিস্কার করা হয়েছে।

sheikh mujib 2020