advertisement
আপনি দেখছেন

দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সারাদেশে বিক্ষোভ সামবেশ ও মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি। আগামীকাল রোববার রাজধানীসহ সরাদেশের জেলা সদর ও মহানগরগুলোতে এ কর্মসূচি পালন করবে বিএনপি।

mirja fhokhrulবিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচির ঘোষণা দেন। এর আগে তার সভাপতিত্বে দলের একটি যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে সরকার একটি জঘন্য নাটক করছে।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে নাটক করা বন্ধ করুন। তার জীবন রক্ষায় অতি দ্রুত জামিনের ব্যবস্থা করে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় দেশের জনগণ এ সরকারকে কোনদিন ক্ষমা করবে না।

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশ মোতায়েন প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, অতীতের মতো বিজয়ের মাসেও সরকার বিএনপির কার্যালয়ের সামনে র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন করে ভয়-ভীতি প্রদর্শনের প্রক্রিয়া অবলম্বন করছে। নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। কিন্তু এভাবে ভয় দেখিয়ে দেশের জনগণকে দমিয়ে রাখা যাবে না। তারা আন্দোলন ও সংগ্রামের মাধ্যমে তাদের অধিকার ঠিকই আদায় করে নেবে। তাই দলের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

স্বাধীনতার দীর্ঘ বছর পরও দেশের জনগণ সত্যিকারের স্বাধীনতা পায়নি উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, 'যারা নিজেদের মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী দাবি করে, তাদের হাতে দেশের গণতন্ত্র বারবার নিহত হয়েছে।' ক্ষমতাসীন দলটি ভয়ের রাজত্ব তৈরি করে দেশ শাসন করছে।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, যুগ্ম মহাসচিব, দলের ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তরের সিনিয়র নেতারা এবং দলের সহযোগী সংগঠনের সদস্যরা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

গত বৃহস্পতিবার জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদার জামিন আবেদনের শুনানি আগামী ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত পিছিয়ে দেয় আপিল বিভাগ।

একই সঙ্গে আদালত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডকে ১২ ডিসেম্বরের মধ্যে তার স্বাস্থ্য প্রতিবেদন জমাদানের নির্দেশ দেন। গত ২৮ নভেম্বর আপিল বিভাগের নির্দেশ অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার খালেদা স্বাস্থ্য প্রতিবেদন জমা দিতে ব্যর্থ হয় মেডিকেল বোর্ড।

বিএনপি প্রধান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর থেকে কারাবন্দী রয়েছেন। একই বছরের শেষের দিকে তাকে আরও একটি দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়। যদিও তার দল দাবি করেছে দুটি মামলাই রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে বিএনপি প্রধান বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।