advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 27 মিনিট আগে

চাঁদাবাজির মামলায় জামিন পেয়েছেন আপন জুয়েলার্সের কর্ণধার দিলদার আহমেদ সেলিমের পুত্রবধূ ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা। তিনি বনানীর ‘রেইন ট্রি হোটেলে’ দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাফাত আহমেদের স্ত্রী। বুধবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করা হয়।

apon juelars wife 2আপন জুয়েলার্সের কর্ণধার দিলদার আহমেদ ও পুত্রবধূ ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা

এদিন আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন পিয়াসা। পরে শুনানি শেষে তাকে জামিন দেয়া হয়। পিয়াসার পক্ষে জামিন শুনানি করেন নজরুল ইসলাম ও সানাউল ইসলাম টিপু।

পিয়াসার আইনজীবী সানাউল ইসলাম টিপু বলেন, গত ৫ মার্চ পিয়াসার বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন তার শ্বশুর দিলদার আহমেদ। আদালত মামলাটি গুলশান থানা পুলিশকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়। মামলাটি তদন্ত করে গুলশান থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম গত ১ আগস্ট ফারিয়া মাহবুব পিয়াসাকে অভিযুক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

আদালত ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে পিয়াসাকে ১১ ডিসেম্বর আদালতে হাজির হতে সমন জারি করে।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, দিলদার আহমেদ সেলিমের ছেলে সাফাত আহমেদকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি বিবাহ করেন পিয়াসা। পরে তিনি জানতে পারেন পিয়াসা মাদকাসক্ত এবং উচ্ছৃঙ্খল চলাফেরা ও জীবনযাপনে অভ্যস্ত। পরে সাফাত আহমেদ ২০১৭ সালের ৮ মার্চ পিয়াসাকে তালাক দেন।

সাফাত রেইনট্রির ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পর গত বছরের ২৯ নভেম্বর জামিন পান। জামিন পাওয়ার পর সে পিয়াসা বাড়িতে যায় এবং পরিবারের লোকজনের সাথে অশালীন আচরণ ও অনৈতিক কার্যকলাপ শুরু করে। পিয়াসা মাদকসহ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত এবং তার মাদকসেবী বন্ধুদের সাথে নিয়ে বাসায় মাদক সেবনের আড্ডা দেয়। দিলদার আহমেদ পিয়াসা ও তার বন্ধুদের বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। পিয়াসা তাতে অস্বীকৃতি জানান।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি পিয়াসা সাফাতের ছোট ভাই ও মায়ের সাথে খারাপ আচরণ করেন। পরে দিলদার আহমেদ ও তার পরিবারের লোকজনের প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন এবং ৫ কোটি টাকা দাবি করেন তিনি।

১৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে টাকা দেয়ার আল্টিমেটাম দেয়া হয়। না দিলে তাদের পরিবারকে মিডিয়া ও ডিজিটাল আইনে বিভিন্ন মামলাসহ নারীঘটিত মামলায় জড়িয়ে জেল খাটানোর এবং সন্ত্রাসী দিয়ে দিলদার আহমেদকে মেরে ফেলার হুমকি দেন পিয়াসা। ইউএনবি।

sheikh mujib 2020