advertisement
আপনি দেখছেন

কেরানীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় চিকিৎসাধীনদের ব্যাপারে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, তার জীবনের ৪০ বছরের অভিজ্ঞতায় এমন ভয়াবহ চিত্র তিনি আর কখনও দেখেননি। শুক্রবার ইনস্টিটিউটের ভবনে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

dr samanta lal senশেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন

ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, অতীতে আগুনে দগ্ধ হওয়া যত রোগী তিনি দেখেছেন, তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি মাত্রায় পোড়া রোগী এসেছেন কেরানীগঞ্জের এ ঘটনায়। বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ৮ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের প্রত্যেকেই শঙ্কামুক্ত। তাদের শরীরের ১২ থেকে ২০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

এছাড়া শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিটের আইসিউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন ১০ জন। তাদের কেউই শঙ্কামুক্ত নন। তাদের প্রত্যেকের শ্বাসনালী খুবই খারাপভাবে পুড়ে গেছে। সকলের শরীরের ৬০ থেকে ৮০ শতাংশ পুড়ে গেছে। আব্দুল রাজ্জাক নামের একজনের শরীরের শতভাগ পুড়ে গেছে। এসব রোগীদের মধ্যে এমনও রয়েছে যাদের মুখ স্বজনরা পর্যন্ত চিনতে পারছেন না।

বৃহস্পতিবার এক রোগীর মৃত্যুর কথা উল্লেখ করে সামন্ত লাল সেন বলেন, ওই রোগীর মুখমণ্ডল এ বিকৃতভাবে পুড়ে গিয়েছিল যে মৃত্যুর পর তার স্ত্রী পর্যন্ত তাকে চিনতে পারেনি। পরবর্তীতে তার হাতের কাটা চিহ্ন দেখে তাকে শনাক্ত করা হয়েছে।

keranigonj fire factoryকেরানীগঞ্জে প্লাস্টিক সামগ্রী তৈরির কারখানায় অগ্নিকাণ্ড

হাসপাতালে চিকিৎসাধীনদের মধ্যে আব্দুর রাজ্জাকের অবস্থা আশঙ্কাজনক উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, তার শরীরের শতভাগ পুড়ে গেছে। যে কোন সময় তার অবস্থার আরো অবনতি হতে পারে। সারা পৃথিবীর কোথাও শতভাগ পুড়ে যাওয়া কাউকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। তারপরও চিকিৎসকরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। বাকিটা সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা। এছাড়া বাকিদের শ্বাসনালী এত খারাপভাবে পুড়ে গেছে যে তা সেরে ওঠা অত্যান্ত দুরূহ ব্যাপার।

উল্লেখ্য, বুধবার বিকাল সাড়ে চারটার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হিজলতলা এলাকার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ফলে প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে নামের একটি কারখানায় আগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে একজন নিহত ও কমপক্ষে ৩০ জন দগ্ধ হন। পরে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। সেই সঙ্গে আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল ও শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিটে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার মধ্যরাত থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত আরও ১৩ জনের মৃত্যু হয়। ইউএনবি।