advertisement
আপনি দেখছেন

বরিশালের কীর্তনখোলা নৌবন্দরে ক্লিংকারবোঝাই কার্গোর সঙ্গে শাহরোখ-২ নামের একটি যাত্রীবাহী লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে হাজী মোহাম্মদ দুদু মিয়া নামের কার্গোটি নদীতে ডুবে গেছে। লঞ্চটির তলা ফেটে গেলেও যাত্রীদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

cargo haji mohammad dudu miaকার্গো হাজী মোহাম্মদ দুদু মিয়া

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল বিকেলে শাহরোখ-২ লঞ্চটি বরগুনা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। কীর্তনখোলা নদীর বরিশাল বন্দর অতিক্রমের সময় বিপরীত দিক থেকে আসা কার্গোর সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এতে ক্লিংকারবোঝাই (সিমেন্টের কাঁচামাল) কার্গোটি নদীতে ডুবে যায়। এটি চট্টগ্রাম থেকে ১২০০ মেট্রিক টন ক্লিংকার নিয়ে অ্যাংকর সিমেন্ট কারখানার জন্য বরিশালে যাচ্ছিল। নদীতে পড়ে নিখোঁজ হওয়ার কোনো তথ্য পাওয়া না গেলেও ডুবে যাওয়া কার্গোর স্টাফদের খোঁজ চালানো হচ্ছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিআইডব্লিউটিএ বরিশালের নৌনিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের উপপরিচালক বরিশাল আজমল হুদা মিঠু সরকার। তিনি জানান, লঞ্চ-কার্গোর সংঘর্ষের ঘটনায় কার্গোটি ডুবে গেছে। তবে লঞ্চটির তলা ফেটে গেলেও যাত্রীদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে।

আজমল হুদা মিঠু আরও জানান, কার্গোটি নিয়ম ভঙ্গ করে নদীর বাঁ দিক দিয়ে যাচ্ছিল। আর নদীতে বাক থাকা সত্ত্বেও লঞ্চটি বেপরোয়া গতিতে চলছিল। এ কারণেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে।