advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 27 মিনিট আগে

বর্তমান সময়ের আলোচিত ও জনপ্রিয় বক্তা মিজানুর রহমান আযহারীর মাহফিলে এক হিন্দু যুবক ইসলাম গ্রহণ করেছেন। গত ১৬ ডিসেম্বর চুয়াডাঙ্গায় অনুষ্ঠিত ওই মাহফিলে লাখ লাখ মুসল্লি উপস্থিত হয়েছিলেন বলে জানা গেছে।

mazharis mahfil chuadanga

প্রসঙ্গত, নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে সম্প্রতি ফেনী ও চাঁদপুরে আযহারীর মাহফিল বন্ধ করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন। এ ছাড়া নারায়ণগঞ্জের বন্দরেও তার আগমন ঠেকাতে প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। এ অবস্থার মধ্যেই চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলায় ওই মাহফিল হয়।

জানা গেছে, গত ১৬ ডিসেম্বরে ঐতিহ্যবাহী পাঁচকমলাপুর দারুল উলুম হাফেজিয়া কওমিয়া মাদ্রাসার ১৩তম ঐতিহাসিক তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে মিজানুর রহমান আযহারী প্রধান আলোচক ছিলেন। তার ওয়াজ শুনতে লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মানুষের সমাগম ঘটে ও বিপুল উৎসাহ, উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে সেই মাহফিল।

মাহফিলের আয়োজক কমিটি থেকে জানানো হয়েছে, মাফফিলে যোগ দিতে ১৫ ডিসেম্বর সকাল থেকেই দূর-দূরান্তের মুসল্লিরা আসতে থাকেন। বাস-ট্রাক, মাইক্রো-মিনিবাস, সিএনজি-অটো, মোটরসাইকেলসহ নানা ধরনের ছোট-বড় যানবাহনযোগে মাহফিলে কয়েক লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি জড়ো হন। বিশালাকার প্যান্ডেল প্রস্তুত রাখা হলেও মাঠ ছাপিয়ে মুসল্লিদের আশপাশের সড়ক ও খালি জায়গায় অবস্থান নিতে দেখা যায়।

ওই দিন রাত ৯টার পর বয়ান শুরু করতে মঞ্চে ওঠেন প্রধান বক্তা মিজানুর রহমান আযহারী। এ সময় তাকে কাছ থেকে একনজর দেখতে খানিকটা উত্তাল হয়ে ওঠে মাহফিলে উপস্থিত ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। টানা ১ ঘণ্টা ৫৬ মিনিট ধরে পবিত্র কোরআন ও হাদিস থেকে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন তিনি।

তার আলোচনা শেষে মোনাজাতের আগমুহূর্তে পবিত্র কোরআনকে ভালোবেসে ও ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে উপস্থিত লাখ লাখ মানুষের সঙ্গে পবিত্র কালেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন রনি কুমার দাস নামের এক হিন্দু যুবক। ইসলাম গ্রহণের পর ওই যুবকের নাম রাখা হয় আব্দুর রহমান। তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সরোজগঞ্জে। তিনি চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের স্নাতক শ্রেণির দর্শন বিভাগের ছাত্র।

sheikh mujib 2020