advertisement
আপনি দেখছেন

দুর্বৃত্তদের আগুনে নড়াইলের নড়াগাতি উপজেলায় পানের বরজ পুড়ে ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটেছে।

betal leaf burn

জানা গেছে, নড়াগাতি উপজেলার মাউলি ইউনিয়নের গন্ধবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা দরিদ্র কৃষক প্রভাস দাসের (৫৫) পানের বরজে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।

প্রভাস দাস বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রাতের অন্ধকারে তার পানের বরজে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে তার ৩০ শতক জমির ওপর তৈরি বরজের সব পান পুড়ে গেছে। এ ঘটনায় তার ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বুধবার তার পান বরজ থেকে তুলে বাজারে বিক্রি করার কথা ছিল। সেজন্য তিনজন কাজের লোকও তিনি ঠিক করে রেখেছিলেন। তিনি এ ঘটনায় পথের ফকির হয়ে গেলেন।

জানা যায়, এর আগেও প্রভাস দাসের পানের বরজে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। গত ১০ জানুয়ারি পানের বরজের একাংশে আগুন লাগায় দুর্বৃত্তরা।

এ প্রসঙ্গে প্রভাস দাস বলেন, গত ডিসেম্বরের ২ তারিখ গন্ধবাড়িয়া গ্রামের কয়েকজন প্রভাসের পরিবারের সদস্যদের হাত-পা কেটে দেয়ার হুমকি দেয়। এ সময় পানের বরজ ও তার বাগানে থাকা মেহগুনি গাছ কেটে দেয়ারও হুমকি দেয় তারা। এরপর ৪ ডিসেম্বর গন্ধবাড়িয়া গ্রামের নন্দপাল (৬০), অসিত পাল (৬০), সঞ্জয় দাস (৫০), সুব্রত দাস (৩০), উদয় দাস (৫৫), সমীর দাস (৪৫), কৃষ্ণ দাস (৪৫) ও হারান দাসের (৪০) স্থানীয় থানায় সাধারণ একটি ডায়েরি করেন তিনি। তার প্রতিশোধ নিতেই পানের বরজে আগুন লাগানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

ওই এলাকার আরেক চাষী সুনীল দাস বলেন, এমন ঘটনা মেনে নেয়া যায় না। জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

পাশের গ্রাম ইসলামপুরের গ্রামের বাসিন্দা আনসার চৌধুরী বলেন, এ ধরনের অমানবিক অপরাধ মেনে নেয়া যায় না। আমরা তাদের শাস্তি দাবি করছি।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার জাকারিয়া শেখ বলেন, তিনি পানের বরজে আফুন দেয়ার কথা শুনে দ্রুত সেখানে চলে যান। ভুক্তভোগী প্রভাস দাসকে সান্ত্বনা দেয়ার কোনো ভাষা তিনি খুঁজে পাননি। ঘটনাটি গ্রাম্য শত্রুতার কারণে ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে নড়াগাতি থানার ওসি রোকসানা খাতুন বলেন, খবর পেয়ে বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।