advertisement
আপনি দেখছেন

গত বছরের আজকের এই দিনে পুরান ঢাকার চকবাজারের চুরিহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৭৮ জন নিহত ও অর্ধশতাধিকেরও বেশি আহত হন। ঘটনার এক বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো এলাকাটিতে সেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের রেশ রয়ে গেছে। নিহত ব্যক্তিদের অনেক পরিবারেই এখন আশার প্রদীপ নেই। বহু কষ্টে তারা জীবনযাপন করছেন।

chawk bazar fire 

পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে অনেকেই ঢাকা ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে চলে গেছেন। বিভিন্ন সংস্থা সাহায্যের আশা দিলেও শেষ পর্যন্ত অনেকেই দেয়নি। সরকার থেকে দেয়া অনেক প্রতিশ্রুতিও বাস্তবায়ন হয়নি। এখন আর কেউ হতভাগ্য পরিবারগুলোর খোজঁখবর নেয় না।

ওই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার পর এলাকাটিতে থাকা বিভিন্ন রাসায়নিক গুদাম সরিয়ে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র সাঈদ খোকনসহ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতির কোনোটিই বাস্তবায়ন করা হয়নি। এখনো এলাকাটির সরু গলিতে নিত্যদিন যানজট লেগে থাকে। বাসাবাড়ির নিচে রাসায়নিক গুদাম।

chawkbazar building fire

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজারের চুরিহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ওইদিন রাত ১০টা ১০ মিনিটে প্রথমে নন্দকুমার দত্ত সড়কের চুরিহাট্টা মসজিদ গলির রাজ্জাক ভবনে আগুন লাগে। সেই আগুন মুহূর্তের মধ্যেই পাশের আরো কয়েকটি ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। চকবাজার এলাকার গ্যাস লাইন থেকেও ওই সময় আগুন বের হচ্ছিল।

chawkbazar fire after

ঘটনাটি তখন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম তাদের প্রধান শিরোনাম করে গুরুত্বের সঙ্গে প্রচার করেছিল। সেই তালিকায় রয়েছে বিবিসি, রয়টার্স, আল-জাজিরা, এএফপি, দ্য গার্ডিয়ান, নিউইয়র্ক পোস্ট, এনডিটিভিসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম।