advertisement
আপনি দেখছেন

ঢাকা শহরের অন্তত ১০ শতাংশ এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ মাত্রায় ডেঙ্গু জ্বরের বাহক এডিস মশার লার্ভার সন্ধান পাওয়া গেছে। সেখানে মানুষের ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়ার সুযোগও বেশি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বর্ষা পরবর্তী এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে।

adis mosquto

গবেষণা মোতাবেক, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ২, ১৬, ২৮, ৩১ ও ১ নম্বর ওয়ার্ড এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫, ৬, ১১, ১৭, ৩৭ ও ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে ঝুকিপূর্ণ মাত্রায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক একেএম আবুল কালাম আজাদ রোববার বলেন, আগের চেয়ে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। ২০১৮ সালে বর্ষা পরবর্তী সমীক্ষা করা হয়নি। তবে ২০১৭ সালের হিসাব থেকে এবার এডিস মশার লার্ভার উপস্থিতি কম। এ ছাড়া শহরে মশার উপস্থিতি ও যেসব জায়গা ঝুকিপূর্ণ যেখানে লার্ভার উপস্থিতিও কম।

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, মশা নিয়ন্ত্রণে এবার মশার প্রজনন উৎসে নজর দেওয়া হয়েছে। এক জায়গায় বেশি দিন পানি জমতে দেয়া হয়নি। তবে নগরবাসীর আরো সহযোগিতা থাকলে ফলাফল অনেক ভালো হতো।

adis larva 1

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আরো বলেন, শহরের যেখানে নির্মাণ কার্যক্রম চলছে সেখানে মশা ও লার্ভার উৎপাত বেশি। যদি কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে নজর দেয় তাহলে মশার উপদ্রব আরো লাঘব হবে।

চলতি বছর ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে থাকবে এমন আশ্বাস দিয়ে আবুল কালাম আজাদ বলেন, গত বছর ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বাড়ার পর থেকেই তারা সচেতনমূলক নানা কার্যক্রম করে আসছেন। প্রকাশিত জরিপের মাধ্যমে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো চিহ্নিত করায় মশা ও লার্ভা নিধন সহজ হবে।