advertisement
আপনি দেখছেন

রাজধানী ঢাকায় বায়ুদূষণের মাত্রা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। চলতি শুষ্ক মৌসুমে বেশ কয়েকবার দূষণের দিক দিয়ে বিশ্বের শীর্ষ নগরীর তালিকায়ও উঠে এসেছে। এবার একটানা তিন দিন শীর্ষস্থানে থাকার রেকর্ড গড়লো ঢাকা। বিশ্বের বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার ভিজুয়ালের পর্যবেক্ষণে এমন তথ্যই প্রকাশ পেয়েছে।

dhaka air pollusionটানা তিন দিন বায়ুদূষণের শীর্ষে ঢাকা

সেখানে উল্লেখ করা হয়, গত বুধ, বৃহস্পতি ও শুক্রবার টানা তিন দিন বায়ুদূষণের দিক দিয়ে বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে ছিল ঢাকা। তবে শনিবার তালিকার তৃতীয় স্থানে নেমে গেছে। এদিন শীর্ষস্থানে ছিল মঙ্গোলিয়ার রাজধানী উলানবাটোর এবং দ্বিতীয়স্থানে পাকিস্তানের করাচি। আর আজ রোববার তালিকার ৬ষ্ঠ স্থানে অবস্থান করছে ঢাকা।

এদিকে, মারাত্মক মাত্রায় বায়ুদূষণের কারণে ঢাকায় বাড়ছে শ্বাসকষ্টের রোগী। হাসপাতালগুলোতেও এ জাতীয় রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ১ নভেম্বর থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চার মাসে বিভিন্ন হাসপাতালে শ্বাসকষ্টের চিকিৎসা নিয়েছেন ৯৮ হাজার ৬৫ রোগী। এর মধ্যে মারা গেছেন অন্তত ২২ জন।

পরিবেশ অধিদপ্তরের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক ও পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের বিশেষজ্ঞ সদস্য আবদুস সোবহান আন্তর্জাতিক একটি গণমাধ্যমকে জানান, ঢাকায় বায়ুদূষণের কারণে শিশু থেকে বৃদ্ধ সব বয়সী মানুষ শ্বাসতন্ত্রের অসুস্থতায় আক্রান্ত হচ্ছেন। চলতি বছর আক্রান্তের পরিমাণ আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

air pollusion bangladesh home

তিনি আরো জানান, উন্নয়নের নামে নিয়মিত রাস্তা-ফুটপাত খনন, নির্মাণকাজ এবং গাছপালা কেটে সাফ করে দেয়ার কারণেই দিনকে দিন বায়ুদূষণের মাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর পরিমাণ কমাতে হলে পর্যাপ্ত সংখ্যক গাছপালা ও সবুজের বেষ্টনী তৈরি করা ছাড়া বিকল্প কোনো উপায় নেই।

চিকিৎসকরা বলছেন, দূষণের কারণে ফুসফুসজনিত বিভিন্ন রোগ বিস্তার ছাড়াও হৃদরোগ, শ্বাসজনিত হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, ক্যান্সার ও জেনেটিক পরিবর্তনজনিত নানা অজানা রোগে আক্রান্তের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যতে এর পরিণতি আরো ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।

sheikh mujib 2020