advertisement
আপনি দেখছেন

অবশেষে পেঁয়াজ রপ্তানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে নিয়েছে ভারত সরকার। এটি কার্যকর হবে আগামী ১৫ মার্চ থেকে। ফলে ওইদিন থেকেই ভারতীয় পেঁয়াজ বাংলাদেশে প্রবেশ করবে এবং এর প্রভাবে নিতপণ্যটির দাম আরো কমে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

indian onion

ভারতীয় বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের এক নোটিশের বরাত দিয়ে গতকাল সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে ভারত সরকার। এর ফলে হঠাৎ করেই বাংলাদেশে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়। এক পর্যায়ে তা ৩০০ টাকা পর্যন্ত ওঠে। পরে তুরস্ক, মিয়ানমার, পাকিস্তান ও মিশরসহ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ওই নোটিশে রপ্তানির ক্ষেত্রে ন্যূনতম মূল্যের শর্তটিও প্রত্যাহার করা হয়েছে। ফলে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা যেকোনো মূল্যে পেঁয়াজ রপ্তানি করতে পারবে। এলসি খোলার ক্ষেত্রেও প্রত্যাহার করা হয়েছে সব ধরনের শর্ত।

এর আগে পেঁয়াজ রপ্তানি নীতিমালায় যে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল সেটিতেই সংশোধনী আনলো দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এর ফলে ব্যাঙ্গালুরু রোজ পেঁয়াজ, কৃষ্ণপুরাম পেঁয়াজসহ দেশটির সব ধরনের পেঁয়াজ রপ্তানিতে আর কোনো বাঁধা থাকল না।

উল্লেখ্য, কয়েক দিন আগেই শোনা যায় যে, পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে ভারত। আর এতেই দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করে। ইতোমধ্যে কেজিতে ২০ থেকে ৩০ টাকা কমে দেশি পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৯০ টাকা এবং আমদানি করা পেঁয়াজ ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া চীন, মিশর ও তুরস্কের পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।