advertisement
আপনি দেখছেন

আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। ১৯৭১ সালের এই দিনে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দান) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বজ্রকণ্ঠে বেজে উঠেছিল, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। ১৯ মিনিটের সেই জাদুকরী ভাষণে সেদিন বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন জাতির পিতা। যা এখন বিশ্ব ইতিহাসের প্রামাণ্য দলিল।

7th march speech of bangabandhu

বিশাল জনসমুদ্রের সামনে দাঁড়িয়ে সেদিন স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন বঙ্গবন্ধু। নিজেদের অধিকার আদায়ের জন্য ভরাট কণ্ঠে আওয়াজ তুলে বলেন, ‘ভাইয়েরা আমার, আমি প্রধানমন্ত্রীত্ব চাই না। আমি এদেশের মানুষের অধিকার চাই।.... এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।... রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরও দেব, তবু এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়ব, ইনশা আল্লাহ।’

বঙ্গবন্ধুর এই জ্বালাময়ী ভাষণের পরই ২৬ মার্চ শুরু হয় সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ। ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর স্বাধীনতা লাভ করে বাঙালি জাতি। ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে ১৬ ডিসেম্বর বিশ্ব মানচিত্রে আত্মপ্রকাশ ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের। আর এই স্বাধীনতা আসে বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই। তিনিই ৭ মার্চের ভাষণে বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন।

২০১৭ সালে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা ইউনেসকো বঙ্গবন্ধুর সেই প্রেরণাদায়ী ভাষণকে বিশ্ব ইতিহাসের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে গ্রহণ করে। এরপর থেকে প্রতিবছর এই দিনটি সরকারিভাবে আড়ম্বর সহকারে পালন করা হয়।