advertisement
আপনি দেখছেন

স্বামী সংসারের খরচ ঠিকমতো না দেওয়ায় হতাশায় নিজের দুই শিশু সন্তানকে নিজেই গলা কেটে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছেন মা আরিফুন্নেসা পপি। শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের অবজার্ভেশন কক্ষে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি সাংবাদিকদের কাছে এ কথা স্বীকার করেন।

goran murder

পপি বলেন, শুক্রবার আনুমানিক রাত ১২টার দিকে তিনি তার দুই শিশু জান্নাত (১২) ও আলভীকে (৭) ঘুমন্ত অবস্থায় প্রথমে আগুনে পুড়িয়ে ও পরে বটি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেন। এরপর সকালে নিজেই নিজের শরীরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

নিজের সন্তানকে হত্যার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, তার স্বামী মোজাম্মেল হোসেন বিপ্লব প্রতি মাসে ১ হাজার ১০০ টাকা সংসার চলানোর খরচ দিতো। এ খরচ দিয়ে সংসার চালানো যাচ্ছিল না। সন্তানদের লেখাপড়া করোনো যাচ্ছিল না। জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল। তাই হতাশায় প্রথমে নিজের সন্তানকে হত্যা এবং পরে নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

এর আগে শনিবার সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের গোড়ান এলাকার ৩৭৯ নম্বর ভবনের চতুর্থ তলার বাসা থেকে ওই দুই শিশু সন্তানের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পাশাপাশি তাদের মা পপিকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ বিষয়ে খিলগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রুহুল আমিন গণমাধ্যমকে জানান, প্রাথমিকভাবে জানা যায়, পপির স্বামীর মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে ইলেক্ট্রিক সমগ্রীর ব্যবসা আছে। তিনি সেখানেই থাকেন। সংসারের খরচ দেওয়া নিয়ে স্বামীর সঙ্গে পপির পারিবারিক কলহ চলছিল। গতকাল রাতে পপি নিজেই তার দুই শিশু সন্তানকে হত্যা করে এবং পরে সকালে নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করার আগে তার বাবা আবু তালেবকে ফোনে খুনের কথা জানায়।

তিনি আরো জানান, এই খুনের নেপথ্যে আর কেউ জড়িত ছিল কিনা বা অন্য কোনো কারণ রয়েছে কি-না তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। সুরতহালে শিশু দুটির শরীরের পোড়া দাগ ও গলায় কাটা দাগ দেখা গেছে। হত্যায় ব্যবহৃত রক্তমাখা বটিটিও জব্দ করা হয়েছে। তাদের মা বর্তমানে ঢামেক হাসপতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

sheikh mujib 2020