advertisement
আপনি দেখছেন

আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) জ্বালাময়ী ভাষণ দিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সেই ভাষণের রেশ ধরে পরবর্তীতে দীর্ঘ নয় মাসের মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে জন্ম হয় লাল-সবুজের স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশ।

dr hens hurder

আগামী ১৭ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। সে উপলক্ষ্যে সম্প্রতি ডয়চে ভেলের সঙ্গে কথা বলেছেন জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ এশিয়া ইন্সটিটিউটের প্রধান ডঃ হান্স হার্ডার। সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শুনলে আজও তার গায়ে কাঁটা দেয়।

হান্স হার্ডার বলেন, শেখ মুজিব অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার প্রতীক। তার বক্তব্যের বিখ্যাত সব লাইন এখনো শোনা হয়। বিশেষ করে ৭ মার্চের সেই ভাষণ ‘এবারের সংগ্রাম মুক্তির সংগ্রাম/ এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। সেই লাইনগুলো শুনলে আজও শরীরে অন্যরকম অনুভূতির সৃষ্টি হয়।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে নিজের অনুভূতিও জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র হবার পেছনে বঙ্গবন্ধুর বিরাট ভূমিকা ছিল। তার মতো সম্ভ্রান্ত, জোরালো ও সাহসী জননায়ক না থাকলে হয়তো বাংলাদেশ স্বাধীন নাও হতে পারতো। তাই সবজায়গাতেই তার জন্মশতবর্ষ উপলক্ষ্যে হইচই হচ্ছে।

জার্মানিতে জন্মশতবর্ষ উদযাপন হবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে সঠিক জানা নেই। তবে হতেও পারে। কারণ জার্মানিতে অনেক রাজনৈতিক দলের সদস্যরা আছেন। তারা অবশ্যই উদযাপন করবেন।

হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই গবেষক বলেন, শেখ মুজিব সব ধরনের দলীয় রাজনীতির ঊর্ধ্বে, সব দলের রাজনীতি ও রাজনৈতিক লবির হস্তক্ষেপের বাইরে। তিনি কোনো বিশেষ দলের নেতা নয়। তিনি পুরো বিশ্বে একজন অসীম সাহসী ব্যক্তি হিসেবেই পরিচিত।