advertisement
আপনি দেখছেন

রাজধানীর ওয়ারীতে সাত বছরের শিশু সামিয়া আফরিন সায়মাকে ধর্ষণ এবং হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় একমাত্র আসামি হারুন অর রশিদকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক কাজী আব্দুল হান্নান এ রায় ঘোষণা করেন।

sayma murder case

রায় ঘোষণার সময় আসামি হারুন অর রশিদকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়।

আদালতের এ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিহত সায়মার মা সানজিদা আক্তার ও বাবা আব্দুস সালাম। তারা সরকারের কাছে দাবি জানান, এ রায় যেন দ্রুত বাস্তবায়ন করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৫ জুলাই সন্ধ্যার পর নিখোঁজ হয় সিলভারডেল স্কুলের নার্সারির ছাত্রী সায়মা। এরপর খোঁজাখুঁজি শুরু হলে আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে একটি নবনির্মিত ভবনের নবম তলার খালি ফ্ল্যাটের ভেতর সায়মাকে গলায় রশি বাঁধা ও রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। পরে রাত ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সায়মার লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় গত ৬ জুলাই রাজধানীর ওয়ারী থানায় হারুন অর রশিদকে একমাত্র আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন সায়মার বাবা আব্দুস সালাম। এর পরদিন ৭ জুলাই কুমিল্লার তিতাস থানার ডাবরডাঙ্গা এলাকা থেকে হারুনকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। পরে গত ৫ নভেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হারুনকে আসামি করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. আরজুন।

গত ২ জানুয়ারি আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের ৬৬ দিনের মাথায় এ মামলার রায় দেন আদালত।