advertisement
আপনি দেখছেন

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ক্ষমতা (ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা) বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে একটি সম্পূরক আবেদন করা হয়েছে।

rab magistrate powerফাইল ছবি

আজ বুধবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে আবেদনটি করেন আদালতে চিলড্রেন’স চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন (সিসিবি ফাউন্ডেশন)-এর চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম ও সংস্থাটির পরিচালক অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান।

র‌্যাবের ওই তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হলেন- সারোয়ার আলম, আক্তারুজ্জামান ও নিজাম উদ্দিন। তাদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ আনা হয়েছে ওই আবেদনে।

আবেদনে বলা হয়েছে, একই সময়ে শিশুমেলা ও ফার্মগেটে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে, যা ক্ষমতার অপব্যবহার। সেইসঙ্গে একই সাক্ষী বার বার বিভিন্ন জায়গায় এসেছেন। তাছাড়া এক ধারার অপরাধ দেখিয়ে ভিন্ন ধারায় চার্জ গঠন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ আনা হয়েছে।

আবেদনে আরো বলা হয়, চলন্ত ভ্যান থেকে কলা চুরির অপরাধে ছয় মাসের সাজা দেওয়া হয়েছে, যা ভ্রাম্যমাণ আদালত দেওয়ার অধিকার রাখেন না।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩১ অক্টোবর ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শিশুদের দেওয়া দণ্ড ও আটকাদেশ কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত। সেইসঙ্গে মোবাইল কোর্টে দেওয়া দণ্ডে যশোর ও টঙ্গীর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে অন্তরীণ ১২১ শিশুকে মুক্তির নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। পরে এসব শিশুদের মুক্তি দেওয়া হয়।

এ সংক্রান্ত ওই প্রতিবেদনটিও আদালতের নজরে আনে চিলড্রেন’স চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন।

sheikh mujib 2020