advertisement
আপনি দেখছেন

বিশ্ব ব্যাংকের দুর্নীতির অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণ করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এই সেতু নির্মাণ ছিল আমাদের আত্মসম্মানের ব্যাপার।

pm shekh hasina 20

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ে ও জেলাভিত্তিক ২৫টি সেতুর উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন তিনি। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হতে না হতেই বিশ্ব ব্যাংক দুর্নীতির দোষারোপ করেছিল। আমি চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলাম− এখানে দুর্নীতি হয়নি। কানাডার কোর্টেও তা প্রমাণ হয়েছে। এটা আমাদের জন্য অনেক বড় সম্মানের। ওই অভিযোগ তুলে আমাদের চরমভাবে অসম্মান করা হয়েছিল। তাই চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েই নিজেদের অর্থায়নে সেতুর কাজ শুরু করি।

পদ্মা সেতু ভিন্নধর্মী একটি দোতলা সেতু হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, এর নিচ দিয়ে রেল চলবে আর ওপর দিয়ে গাড়ি চলবে। পদ্মার মতো খরস্রোতা নদীতে এ ধরনের সেতু নির্মাণ বিরাট ঝুঁকির ব্যাপার ছিল। আমরা সমগ্র বাংলাদেশে যোগাযোগের একটা নেটওয়ার্ক তৈরি করছি। এটা সব ক্ষেত্রেই কাজে লাগবে। আজ উদ্বোধন হওয়া প্রকল্পগুলো মুজিববর্ষের উপহার বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ সবচেয়ে অবহেলিত ছিল উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এক সময় স্টিমার বা লঞ্চে করে ভাঙ্গা পর্যন্ত যেতে হতো, গোপালগঞ্জ যেতে লাগতো ২৪ ঘণ্টা। আমি ১৯৮১ সালে দেশে ফিরে এমন অবস্থাই দেখেছি। ১৯৯৬ সালে সরকার গঠন কারার পর সারা বাংলাদেশে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ শুরু করি। দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় এসে পরিকল্পনামতো গোটা দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করে যাচ্ছি।

এর আগে আজ দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ের (ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা পর্যন্ত) উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পর আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত ৫৫ কিলোমিটারের দীর্ঘ রুটটি যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। এ এক্সপ্রেসওয়েতে ৫টি ফ্লাইওভার, ১৯টি আন্ডারপাস, প্রায় ১০০টি সেতু ও কালভার্ট রয়েছে। এটি মাওয়া থেকে যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ। এ ছাড়া ২০ কিলোমিটার দীর্ঘ পানছার থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত দুটি এক্সপ্রেসওয়ে খুলনা, বরিশাল ও ঢাকা বিভাগের একাংশকে যুক্ত করেছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউসের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও সেনাবাহিনী প্রধান আজিজ আহমেদ খান।