advertisement
আপনি দেখছেন

মানিকগঞ্জে বাড়তি সতর্কতা হিসেবে বিভিন্ন দেশ থেকে আসা আরো ৩০ জন প্রবাসীকে নিজ নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে জেলাটিতে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা লোকের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১০৯ জন।

corona virus

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন মানিকগঞ্জ সিভিল সার্জনের দায়িত্বে থাকা সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা লুৎফর রহমান।

তিনি জানান, সম্প্রতি চীন, ইতালি, মালয়েশিয়া, বাহরাইন, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, দুবাই, কুয়েত ও সিঙ্গাপুরসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে এসব প্রবাসী দেশে ফিরেছেন। তবে তাদের মধ্যে কেউ এখনো করোনাভাইরাস আক্রান্ত হননি। এমনকি, তাদের মধ্যে সংক্রমণের কোনো লক্ষণও দেখা যায়নি। বাড়তি সতর্কতা হিসেবে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, দেশে করোনাভাইরাস যাতে বিস্তার লাভ করতে না পারে, তাই গত সোমবার ইতালি ফেরত এক প্রবাসীকে বাড়তি সতর্কতা হিসেবে হোম কোয়ারেন্টাইনে বিশেষ নজরদারিতে নেওয়া হয়। এর পরদিন মঙ্গলবার আরো ৫৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়। বুধবার বিকেল পর্যন্ত এ সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৭৯ জনে এবং আজ বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত তা ১০৯ জনে গিয়ে দাঁড়ায়।

হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা প্রবাসীদের মধ্যে ৯৭ জন পুরুষ এবং ১২ জন নারী রয়েছে উল্লেখ করে লুৎফর রহমান আরো জানান, আগামী ১৪ দিন এই ১০৯ জন প্রবাসী এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তাদের কারোর শরীরে যদি করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা না দেয়, তাহলে তারা স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারবেন।

তিনি আরো জানান, কোয়ারেন্টাইনে থাকা কেউ যাতে নির্দেশ অমান্য করতে না পারে, তাই তাদের সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। তারপরও কেউ নির্দেশ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।