advertisement
আপনি দেখছেন

গণফোরামের নতুন আহ্বায়ক কমিটিতে স্থান হয়নি দলটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী ও আবু সাইয়িদসহ অনেক সিনিয়র নেতার। আজ বৃহস্পতিবার ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি ও রেজা কিবরিয়াকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন এই কমিটির লিস্ট গণমাধ্যমে পাঠানো হয়।

montu subroto

ড. কামাল হোসেন ও রেজা কিবরিয়া স্বাক্ষরিত ৭২ জনের এ আহ্বায়ক কমিটিতে গণফোরামের সাংসদ মোকাব্বির খান ছাড়াও আ ম শফিক উল্লাহ, মহসিন রশীদসহ অনেকেই আছেন। শুধু দলটির সিনিয়র নেতাদের রাখা হয়নি।

এ বিষয়ে রেজা কিবরিয়া বলেন, দলের বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করেছে তাদের রাখা হয়নি। নতুন কমিটিতে যারা স্থান পেয়েছেন তারাই পরবর্তী কাউন্সিল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন।

দলীয় সভাপতি কামাল হোসেনের চেম্বারে বসে রাজনীতির সময় শেষ। এখন থেকে তৃণমূল পর্যায়ে গিয়ে সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করা হবে বলে তিনি জানান।

কমিটিতে জায়গা না পাওয়া দলটির প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, গত ২৬ বছরে দলের মধ্যে এমন সমস্যা দেখা দেয়নি। এই মুহূর্তে দলের মধ্যে এমন ভাঙন গণফোরাম ও কামাল হোসেনের জন্যও খারাপ। আশা করি, নেতাদের শুভবুদ্ধির উদয় হবে এবং খুব শীঘ্রই এ সমস্যার সমাধান করবেন।

প্রসঙ্গত, গত ৪ মার্চ গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের এক বছর পূর্ণ হতে না হতেই সাংগঠনিক শৃঙ্খলার অভাবে সেটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন দলটির সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

এ বিষয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ড. কামাল বলেন, কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতার দায়িত্বহীন আচার-আচারণে দলের সাংগঠনিক শৃঙ্খলায় অভাব দেখা দেয়। গণমাধ্যমে অনাকাঙ্ক্ষিত সংবাদ প্রকাশ হয়। যা দলের স্বার্থে মেনে নেয়া যায় না। তাই কাউন্সিলের ক্ষমতাবলে তিনি কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন।