advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার এই আতঙ্কজনক দিনগুলোতে দেশের সবচেয়ে পরিচিত মুখ অধ্যাপক ড. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা, এমনটা বললে অত্যুক্তি হবে না। দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির হালনাগাদ তথ্য নিয়ে প্রতিদিনই হাজির হন মানুষের সামনে। সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে নানা পরামর্শও দেন তিনি।

meerjadi corona

কে এই মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা?

অধ্যাপক ফ্লোরা বর্তমানে সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক। আপাতভাবে এ পরিচয়েই দেশের সবাই তাকে চেনে।

মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা ঢাকা মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী। ভর্তি হন ১৯৮৩ সালে। এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করার পর অস্থায়ীভাবে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন। এর ফাঁকেই রোগতত্ত্বে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন জাতীয় প্রতিষেধক ও সামাজিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান (নিপসম) থেকে। এরপর সহকারী পরিচালক হিসেবে যোগ দেন বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্স কাউন্সিলে। তিন বছর পর অধ্যাপনা শুরু করেন নিপসমে। এরপর পিএইচডি করেন কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

২০১৬ সালে মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা পরিচালক হিসেবে যোগ দেন আইইডিসিআরে। তারপর থেকেই প্রতিষ্ঠানটিকে গতিশীল করতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। শুধু করোনাভাইরাস নয়, জিকা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের সময় তার ভূমিকা ছিল অসামান্য। ২০১৭ সালে চিকুনগুনিয়ার সময়ও তিনি সামনে থেকে দায়িত্ব পালন করেছেন।

শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন। বর্তমানে তনি ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব দ্য ন্যাশনাল পাবলিক হেলথ ইনস্টিটিউটের সহ-সভাপতি দায়িত্বে আছেন। এছাড়া ফাউন্ডেশন ফর অ্যাডভান্সমেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্সের একজন সম্মানিত ফেলো তিনি]।

অধ্যাপক ফ্লোরার স্বামী প্রকৌশলী রবিউল আলম একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন।