advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর। আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এই সময়ের মধ্যে পরিস্থিতির কোনো উন্নতি না হলে ছুটির মেয়াদ ঈদুল ফিতর পর্যন্ত বাড়ানোর চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে।

education ministry 2019

এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়টি সবার আগে। তাই সব কিছু বিবেচনায় নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। যতদিন পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হবে ততদিন বন্ধ রাখা হবে। প্রয়োজনে ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হতে পারে।

তিনি বলেন, যদি লম্বা সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে হয় তাহলে বিকল্প উপায়ে শিক্ষা কার্যক্রম চালাতে হবে। ইতোমধ্যে সংসদ টেলিভিশনে শ্রেণি পাঠ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। আরো বিকল্প উপায় খোঁজা হচ্ছে। প্রয়োজনে সেগুলোও বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, আগে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা। তারপর বাকি সব। তাই করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হবে। প্রয়োজনে ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হবে। তবে এ ব্যাপারে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

তিনি বলেন, যদি দীর্ঘ সময় বন্ধ রাখতে হয় তাহলে বিকল্প উপায়ে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে নেয়া হবে। এই সপ্তাহ থেকেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম-পঞ্চম শ্রেণির জন্য অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা ক্লাস রেকর্ড করে তা টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হবে। এতে ঘরে বসে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করার সুযোগ পাবে।

এদিকে, আগামী ৯ এপ্রিল পবিত্র শবেবরাত। এর ১৫ দিন পরই শুরু হবে মাহে রমজান। যদি ছুটির মেয়াদ বাড়ে তাহলে পুরো রমজান মাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে আগামী ঈদুল ফিতর পর্যন্ত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।