advertisement
আপনি দেখছেন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি ও ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ক্যাপ্টন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদ রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেছেন। বুধবার সন্ধ্যায় কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেন তিনি।

abdul majedজাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি ও ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ক্যাপ্টন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদ

বিষয়টি নিশ্চিত করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের সচিব শহীদুজ্জামান গণমাধ্যমকে বলেন, মাজেদের প্রাণভিক্ষার আবেদনটি তারা পেয়েছেন। সেটি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

এর আগে দুপুরে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির করা হয় আবদুল মাজেদকে। এ সময় আদালতে বিচারক এম হেলাল উদ্দিন চৌধুরী তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ ও মামলার রায় পড়ে শোনান এবং মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেন।

তারও আগে গত সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টায় মিরপুর ১১ নম্বর থেকে আবদুল মাজেদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর মঙ্গলবার আদালতে হাজির করলে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম জুলফিকার হায়াৎ তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

dhaka central jail keranigonjঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার

নিরাপত্তার জন্য মাজেদকে বুলেট প্রুফ ভেস্ট ও মাথায় হেলমেট পরিয়ে আদালতে হাজির করে পুলিশ। কাঠগড়ায় তার মধ্যে কোনো প্রতিক্রিয়া লক্ষ করা যায়নি। আদালতে তার পক্ষে কোনো আইনজীবীকেও দেখা যায়নি।

আবদুল মাজেদ বিদেশে পলাতক বঙ্গবন্ধু হত্যার ছয় আসামির একজন। বাকি পাঁচ জনের মধ্যে রাশেদ চৌধুরী আমেরিকায় ও নূর চৌধুরী কানাডায় অবস্থায় করছেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া শরিফুল হক ডালিম, কর্নেল রশীদ, মুসলেহউদ্দীন রিসালদার বিভিন্ন দেশে পলাতক আছেন।

আবদুল মাজেদের বাড়ি ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিনের বোরহানগঞ্জ এলাকায়।