advertisement
আপনি দেখছেন

ঈদের আগেই মার্কেট খুলতে প্রস্তুত ব্যবসায়ীরা, শুধু সরকারের একটি ঘোষণার অপেক্ষা করছেন। আংশিকভাবে হলেও তারা এবারের ঈদের বাজারটা ধরতে চান। সেজন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বরাবর একটি আবেদনও করেছেন। তাদের প্রত্যাশা, সরকার দ্রুতই বিপণি বিতান খোলার অনুমতি দেবে।

basundhara mallরাজধানীর বসুন্ধরা শপিং কমপ্লেক্সের ভেতরের দৃশ্য

দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। আজ দেড় মাস দোকানপাট বন্ধ, ছোট পুঁজির যেসব ব্যবসায়ীরা আছেন তারা তো না খেয়ে মরার দশা। ঈদের আগে দোকান খুলে দিলে ক্ষতিটা কিছুটা হলেও পুষিয়ে নিতে পারবে তারা। তাই আমরা চাই সরকার এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিক।

তিনি আরো বলেন, ব্যবসায়ীরা ঈদের প্রস্তুতি নেন তিন মাস আগে থেকেই। সে হিসেবে বেশিরভাগ ব্যবসায়ী ঈদে বিক্রির জন্য মালামাল দোকানে তুলে ফেলার পরই চলে আসল করোনার ধাক্কা। ঈদের আগে সেগুলোর ৩০ শতাংশও যদি বিক্রি না হয় তাহলে পথে বসতে হবে আমাদের।

ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারের প্রণোদনার বিষয়ে হেলাল উদ্দিন বলেন, সরকারের প্রণোদনা ভোগ করবেন বড় ব্যবসায়ীরা, আমরা তার কিছুই পাব না। তাই প্রণোদনার কথা বলে খুব একটা লাভ নেই। আমরা এখন অনিশ্চিত গন্তব্যের পথে। ৬ রমজান চলে যাচ্ছে, এখনই দোকান খোলার অনুমতি পেলে বেঁচে যেত অনেক ব্যবসায়ী।

সিনিয়র বাণিজ্য সচিব ড. জাফর উদ্দিন বলেন, দোকানপাট খেলার বিষয়টি কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের ব্যাপার। অবশ্য মন্ত্রণালয়ও বিষয়টা নিয়ে ভাবছে। তবে এখনই কিছু বলা ঠিক হবে না।

sheikh mujib 2020