advertisement
আপনি দেখছেন

দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। বাধ্য হয়ে কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান অনলাইন ক্লাস নেওয়া শুরু করেছে। কিন্তু ইন্টারনেটের ব্যায় মেটাতে না পারায় শুরুতেই মুখ থুবড়ে পড়েছে এই কার্যক্রম। কয়েকদিন ভার্চুয়াল ক্লাসে যোগ দেওয়ার পর খরচ মেটাতে না পারায় শিক্ষার্থীরা এ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। এমতাবস্থায় শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট প্যাকেজ দেওয়ার জন্য মোবাইল অপারেট কোম্পানিগুলো সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

dipu moni education minister

সোমবার সকালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক উপকমিটির আয়োজনে ‘বর্তমান বৈশ্বিক সংকটকালে শিক্ষা বিষয়ে আমাদের করণীয়’ শীর্ষক অনলাইন সেমিনারে অংশ নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মণি বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরা অনেকদিন থেকেই ভাবছি। বাস্তবতা হল, শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট না দিতে পারলে অনলাইন ক্লাস চালিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়। মোবাইল অপারেট কোম্পানিগুলোর সঙ্গে আলোচনা চলছে।

তিনি আরো বলেন, সম্পূর্ণ বিনামূল্যে না হলেও নামমাত্র মূল্যে ইন্টারনেটের ব্যবস্থা করা হবে শিক্ষার্থীদের জন্য। এজন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ও এ ব্যাপারে কাজ করে যাচ্ছে। আশাকরি খুব দ্রুতই আমরা এটা বাস্তবায়ন করতে পারবো।

education ministry 2019

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সব সংকটের মধ্যেই একটা ইতিবাচক দিক থাকে। করোনাভাইরাস আমাদেরকে ডিজিটাল প্লার্টফর্মে যেতে বাধ্য করছে। আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী, করোনা না থাকলেও কয়েক বছরের মধ্যে আমরা শিক্ষার ডিজিটালাইজেশন সম্পন্ন করতাম। সেটা এখন কয়েক বছর আগেই সম্ভব হয়ে গেল।

sheikh mujib 2020