advertisement
আপনি দেখছেন

শেষ হয়ে গেছে পবিত্র ঈদুল আজহা। তবে এর রেশ এখনো কাটেনি। আজও রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে কোরবানি দিয়েছে মানুষ। তাছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে এ বছর অনেকেই গ্রামের বাড়ি না গিয়ে ঢাকাতেই ঈদ করছেন। তাই আগের বছরগুলোর মতো এবার আর রাজধানী পুরোপুরি ফাঁকা হয়নি। ঈদের দ্বিতীয় দিনই রাস্তায় অসংখ্য যানবাহন দেখা গেছে।

dhaka empty eid2k20ঈদের পর ঢাকার ভিন্ন চিত্র

আজ রোববার সকাল থেকেই ঢাকার রাস্তায় বাস, মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কার, অটোরিকশা চলতে দেখা গেছে। বিশেষ করে রামুপরা, বাড্ডা, বেইলি রোড, হেয়ার রোড, সার্কিট হাউজ রোড, ইস্কাটন গার্ডেন সড়ক, মগবাজার, কাকলাইল, বিজয়নগর, শাহবাগ, নয়া পল্টন, ফকিরাপুল, ধানমণ্ডি, মোহাম্মদপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় অসংখ্য যানবাহন দেখা গেছে। যেমনটা অন্যান্য বছর দেখা যায় না।

প্রতিবছর কোরবানির ঈদের সময়, বিশেষ করে ঈদের দিন এবং তার পরের দুই দিন রাজধানীর বেশিরভাগ এলাকাতেই দোকানপাট বন্ধ থাকে। কিন্তু আজ ঈদের দ্বিতীয় দিনই বিভিন্ন এলাকায় দোকানপাট খুলতে দেখা গেছে। রাস্তাঘাটেও মানুষের উপস্থিতি ছিল বেশ। ফলে আগের বছরগুলোর তুলনায় এ বছর আর ঢাকা নিশ্চুপ-নির্জন হয়ে পড়েনি। শহরের বাসিন্দারাও আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বেড়াতে যাচ্ছেন।

dhaka empty eid2k2ঈদের পর ঢাকার ভিন্ন চিত্র

এ বিষয়ে সিদ্দেশ্বরীর বাসিন্দা এক সরকারি কর্মকর্তা বলেন, করোনা সংক্রমণের ভয়ে এবার আর বাড়িতে যাওয়া হয়নি। তাই স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে এখন আত্মীয়-স্বজনের বাসায় যাচ্ছি। তাছাড়া রাস্তাঘাটও অন্যান্য দিনের তুলনায় কিছুটা ফাঁকা।

পুরান ঢাকার এক বাসিন্দা বলেন, এবার অনেক মানুষই গ্রামে না গিয়ে ঢাকাতে ঈদ করেছে। ঈদের দিন বাসায় থাকলেও আজ রাস্তা ফাঁকা আছে মনে করে বের হই। কিন্তু রাস্তায় নেমে দেখলাম সম্পূর্ণ বিপরীত চিত্র। যানবাহন অন্য ঈদের তুলনায় এ বছর অনেক বেশি।

sheikh mujib 2020