advertisement
আপনি দেখছেন

খাদ্য নিরাপত্তা জোরদার করতে চলমান ‘মডার্ন ফুড স্টোরেজ ফ্যাসিলিটিজ প্রজেক্টে'র আওতায় বাংলাদেশকে আরো ২০ কোটি ২০ লাখ ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্ব ব্যাংক। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ১ হাজার ৭১৩ কোটি টাকা। গত শুক্রবার বিশ্ব ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালকদের বোর্ড এ ঋণ বরাদ্দের অনুমোদন দেয়।

the world bank logoবাংলাদেশকে আরো ১৭১৩ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে বিশ্ব ব্যাংক- প্রতীকী ছবি

আজ রোববার বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয় থেকে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রায় ৪৫ লাখ পরিবারের জন্য ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৫০০ টন শস্য মজুদ করতে চলমান প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশকে এই অতিরিক্ত ঋণ দিচ্ছে আন্তর্জাতিক ঋণদাতা সংস্থাটি।

এতে আরো বলা হয়, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও চলমান নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মাহামারির মতো সংকটময় পরিস্থিতিতে মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা জোরদার করতে এই প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্প খাদ্য শস্য সংরক্ষণ ও খাদ্য নিরাপত্তা জোরদার করতে বাংলাদেশকে সাহায্য করবে।

food storeস্টিলের তৈরি আধুনিক খাদ্য গুদাম

আরো বলা হয়, ‌'মডার্ন ফুড স্টোরেজ ফ্যাসিলিটিজ প্রজেক্টের আওতায় বাংলাদেশের আট জেলায় চাল ও গম সংরক্ষণের জন্য ৮টি আধুনিক মানের স্টিলের খাদ্যগুদাম নির্মাণ করা হবে। বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে, ময়মনসিংহে ও টাঙ্গাইলের মধুপুরে তিনটি খাদ্যগুদাম নির্মাণের কাজ চলছে। অতিরিক্ত বরাদ্দকৃত অর্থ দিয়ে ঢাকা, বরিশাল ও নারায়ণগঞ্জে তিনটি চালের গুদাম এবং চট্টগ্রাম ও খুলনার মহেশ্বরপাশায় দুটি গমের গুদাম নির্মাণ করা হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ব ব্যাংকের বাংলাদেশ ও ভুটানের ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ডিরেক্টর মোহাম্মদ আনিস বলেন, বাংলাদেশের প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষের বসবাস গ্রামে। বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে প্রতিনিয়ত তাদের জীবন-জীবিকা হুমকির মুখে পড়ছে। ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে তাদের খাদ্য নিরাপত্তা।

তিনি আরো বলেন, এই প্রকল্পের মাধ্যমে আধুনিক পদ্ধতিতে খাদ্য শস্য সংরক্ষণ ও বিতরণের ব্যবস্থা করা যাবে। যা প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা করোনাভাইরাসের মতো সংকটময় পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে সাহয্য করবে।

sheikh mujib 2020