advertisement
আপনি দেখছেন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের ৯০তম জন্মদিন আজ। ১৯৩০ সালের এই দিনে তিনি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে আওয়ামী লীগসহ এর ভ্রাতৃপ্রতিম, সহযোগী ও সমমনা সংসগঠনগুলো।

seikh fajilatunnesa mujibবঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর বাড়িতে ঘাতকদের গুলিতে মৃত্যুবরণ শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব। সেই কালরাতেই বাঙালি জাতি চিরতরে হারিয়ে ফেলে তাদের স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ওই দিন বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ছাড়াও ঘাতকদের হাতে প্রাণ হারান তাদের সন্তান শেখ কামাল, শেখ জামাল, পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল। এমনকি ঘাতকদের নির্মমতার হাত থেকে রেহাই পায়নি ছোট্ট শিশু শেখ রাসেলও।

প্রতিবছর জাতীয়ভাবে ও ঘটা করে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হলেও এবার নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) কারণে ভার্চুয়াল মাধ্যমে বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

bongobondhu familyসন্তানদের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গামাতা

মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা বলেন, বঙ্গমাতার জন্মদিন উপলক্ষ্যে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেনে গণভবন থেকে অনলাইনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি আরও বলেন, অনুষ্ঠানে নির্বাচিত ৫ জনকে আর্থিক অনুদান, ৫ জনকে সেলাই মেশিন ও ৫ জনকে ল্যাপটপ দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে তাদের মোবাইল নম্বরে আর্থিক অনুদান হস্তান্তর করবেন। আর বাকি ১০ জনকে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ল্যাপটপ ও সেলাই মেশিন হস্তান্তর করবেন গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক।

শনিবার সকালে বনানী কবরস্থানে শহীদ ফজিলাতুন্নেসার সমাধিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করে আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী এবং ভাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলো। পাশপাশি বঙ্গমাতার স্মরণে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল এবং কোরআন খতমের আয়োজন করা হয়। একই দিন সন্ধ্যায় ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর বাড়ি প্রাঙ্গণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করবে বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগ।

sheikh mujib 2020