advertisement
আপনি দেখছেন

এবার নেপালকে রেলপথে বাংলাদেশের রুট ব্যবহারের ট্রানজিট সুবিধা দিতে যাচ্ছে সরকার। সে জন্য তাদের সঙ্গে থাকা ট্রানজিট চুক্তি সংশোধনের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

ministry secretary khondokar anowerমন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আজ 'অ্যাডেনডাম টু দ্য প্রটোকল টু দ্য ট্রানজিট এগ্রিমেন্ট বিটুইন দ্য গভর্মেন্ট অব দ্য পিপলস রিপাবলিক অব বাংলাদেশ অ্যান্ড দ্য গভর্মেন্ট অব দ্য ফেডারেল ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব নেপাল' খসড়া অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এটিতে এখন স্বাক্ষর করবে দুই দেশের সরকার।

১৯৭৬ সাল থেকেই নেপালের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক ট্রানজিট চুক্তি আছে জানিয়ে তিনি বলেন, সেই ট্রানজিট চুক্তির মধ্যে নেপাল অনুরোধ করেছে যে, বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জের রোহনপুর আর ভারতের সিঙ্গাবাদ হয়ে যে রেলপথ আছে সেখানে আরেকটি ট্রানজিট সুবিধা দেয়ার জন্য।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ১৯৭৬ সাল থেকেই এই প্রোটোকলটা আছে। এখন নতুন আরেকটা ওপেনিং হলো। ফলে রোহনপুর ও সিঙ্গাবাদ রেলপথের মাধ্যমে মালামাল আনতে ও নিতে পারবে নেপাল। প্রস্তাব অনুমোদন পেলে রোহানপুর থেকে সিঙ্গাবাদ হয়ে নেপালের বীরগঞ্জ পর্যন্ত রেলপথে পণ্য পরিবহন সুবিধা চালু হবে।

এ ছাড়া নেপাল বাংলাদেশের সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবহার করতে চায়। এটা এখনো আলোচনা পর্যায়ে আছে। আজকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ওইভাবে সেটা উপস্থাপন করতে পারেনি। যদি এটায় রাজি হয়, তাহলে অদূর ভবিষ্যতে সেই প্রস্তাবও এখানে আসবে, যোগ করেন তিনি।

sheikh mujib 2020