advertisement
আপনি দেখছেন

হঠাৎ করে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও। তারা আশঙ্কা করছেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্তে না আবার ঢাকার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সাম্প্রতিক টানাপোড়েন আরো বেড়ে যায়। তাই বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর পরই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য আলোচনা শুরু করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

desi new onionপেঁয়াজ

সংশ্লিষ্ট কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, আপাতত ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চেষ্টা করছে, নিষেধাজ্ঞার জন্য বিভিন্ন সীমান্তে আটকে পড়া পেঁয়াজবাহী ট্রাকগুলোকে বাংলাদেশে ঢোকার অনুমতি দেয়া। কিন্তু আজ বুধবার সন্ধ্যা পার হলেও সে সম্পর্কে কোনো অগ্রগতি লক্ষ করা যায়নি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এমনিতেই সাম্প্রতিক সময়ে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে বেশ আলোচনা চলছে। যার ফলশ্রুতিতে গত মাসে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা ঢাকা সফর করে গেছেন। এমতাবস্থায় হঠাৎ করে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় ঢাকার সঙ্গে নয়া দিল্লির সম্পর্ক আরো খারাপ হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

indian onion 1পেঁয়াজ

প্রতিবছর বাংলাদেশের পেঁয়াজের ঘাটতির প্রায় ৯০ শতাংশ ভারত থেকে আমদানি করা হয়ে থাকে। ফলে হঠাৎ করে রপ্তানি বন্ধ করার মানে হলো- দেশীয় বাজারে পণ্যটির দাম কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়া। সেটা গত দুই দিন ধরে বেশ কয়েক জায়গায় দেখাও গেছে।

অন্যদিকে, বাংলাদেশে রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় খেপেছেন ভারতীয় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরাও। সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার মহারাষ্ট্রের লাসালগাঁওয়ে বুধবার এ নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন তারা। এতে শামিল হয়েছেন পেঁয়াজ চাষীসহ বিভিন্ন কৃষক সংগঠনও। সবার একটাই কথা, এই সিদ্ধান্ত পুরোপুরি রাজনৈতিক এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে তা প্রত্যাহার করতে হবে।

sheikh mujib 2020