advertisement
আপনি দেখছেন

আসছে শীতে দেশে করোনাভাইরাসের পরিস্থিতির আরো অবনতি হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। আর সেটা মাথায় রেখে আগাম প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

bd pm hasinaপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ফাইল ছবি

আজ রোববার প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান গ্রহণের সময় এ নির্দেশনা দেন তিনি। নিজের সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এদিন অনুদান দিয়েছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে অনুদান গ্রহণ করেন তার মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

coronaকরোনাভাইরাসের প্রতীকী ছবি

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের মহামারি মোকাবেলায় সবাই আন্তরিকভাবে কাজ করেছে। আমি বলব সবাই, কাউকে বাদ দিতে পারবো না আমি। কারণ সবাই আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে বলে হয়তো আমরা এটা মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি।

তিনি বলেন, তবে সামনে শীত, ফলে করোনা পরিস্থিতির হয়তো আরেকটু অবনতি হতে পারে। তাই এখন থেকেই আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই, সবাই সুস্থ থাকেন। দেশটা যাতে এই করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে মুক্তি পায়, গোটা বিশ্বই যাতে এ মুক্তি পায়, সেজন্য দোয়া করেন। সত্যিই করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের খুব কষ্ট হচ্ছে।

তবে তার পরও ব্যবসা-বাণিজ্য সচল রাখার জন্য আমরা যথাযথ পদক্ষেপ নিচ্ছি। পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমরা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছি। এর জন্য যা যা দরকার, তা দিয়ে যাচ্ছি আমরা। আমাদের লক্ষ্য একটাই, আমরা জনগণের জন্য কাজ করব, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, সামাজিক ও মানবতার কাজে ব্যাংকসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে আসছে, এ জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ। যেকোনো দুযোগ, দুর্বিপাক বা দেশে একটা কিছু হলেই আপনারা এগিয়ে আসেন, এমনকি মুজিববর্ষে সব সময় আপনারা এগিয়ে এসেছেন। সেজন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

এদিন ৩৪টি ব্যাংক, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট, ফরেইন অফিসার্স স্পাউজ অ্যাসোসিয়েশন, মিনিস্টার গ্রুপ, খাদ্য মন্ত্রণালয়, রাজশাহী মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশন এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়।

sheikh mujib 2020