advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে মার্চের শেষদিক থেকে সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের আকাশ যোগাযোগ বন্ধ আছে। এর ফলে ছুটিতে বাড়ি আসার পর আটকা পড়েছেন প্রায় ১ লাখ সৌদি প্রবাসী শ্রমিক। এক নির্দেশনায় সৌদি সরকার জানিয়েছে, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এসব শ্রমিকদেরকে দেশটিতে প্রবেশ করতে হবে। এদিকে নির্দেশনা অনুযায়ী সৌদিতে প্রবেশ করার জন্য টিকিট পাচ্ছেন না তারা।

bd biman airline

সৌদি আরবের ঘোষণার পর গত শনিবার থেকেই টিকিটের জন্য কারওয়ান বাজারের পাশে অবস্থিত সৌদি এয়ারলাইন্সের বুকিং কার্যালয়ের সামনে ভিড় করতে থাকে প্রবাসীরা। রোববার কেউ কেউ টিকিট পেয়েছেন। কিন্তু ভিড় বাড়তে থাকায় এক পর্যায়ে টিকিট বিক্রি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ নিয়ে সোমবার কার্যালয়ের সামনে এবং মতিঝিলে বিক্ষোভ করে প্রবাসীরা।

বিষয়টির কোনো সুরাহা না হওয়ায় গতকালের মতো আজও (মঙ্গলবার) কারওয়ান বাজারে বিক্ষোভ করেছে সৌদি প্রবাসীরা। রাজু আহমেদ নামের একজন বিক্ষোভকারী জানাচ্ছেন, ১ অক্টোবর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সৌদি আরবে ফ্লাইট পরিচালনা করবে। কিন্তু তারা ল্যান্ডিং পারমিশন পায়নি। এদিকে আমাদের ভিসার মেয়াদ বাড়ানো হবে না, ওয়ার্ক পারমিটও নাকি বাড়ানো হবে না। তাহলে এর সমাধান কী?

shahjalal airport dhaka

বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মহিবুল হক বলেন, প্রবাসীদের এই সমস্যা নিয়ে সৌদি আরবের সঙ্গে কথা বলার জন্য আমরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছি। সমাধান করতে গিয়ে সৌদি আরব যদি আমাদেরকে ফ্লাইট বাড়িয়ে দিতে বলে, তাহলে আমরা সেটা করে দেব। কিন্তু এ নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে সৌদি আরবকেই।

sheikh mujib 2020