advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশে কোটিপতি কতজন, এমন কৌতুহলী জিজ্ঞাসা অনেকের। তবে নানা কারণেই এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ অধিকাংশ মানুষের মধ্যেই সম্পদ গোপন রাখার প্রবণতা কাজ করে। বিশেষকরে অবৈধ পথে সম্পদ অর্জন করলে তো কথাই নেই। তারপরও দেশের ব্যাংকগুলোর যেসব অ্যাকাউন্টে কোটি টাকার ওপরে আছে, সেগুলোর সংখ্যা ২৪ হাজার ২২০টি।

bd bankবাংলাদেশ ব্যাংক

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদনে আরো দেখানো হয়েছে, চলতি বছরের জুন পর্যন্ত দেশে কোটি টাকার এমন অ্যাকাউন্টের সংখ্যা ছিল ৮৬ হাজার ৩৭টি। বর্তমানে আছে ২৪ হাজার ২২০টি। গত ৩ মাসে এই সংখ্যা বেড়েছে ৩ হাজার ৪১২টি। বিশ্লেষণে আরো দেখা গেছে, সার্বিকভাবে ২০১১ সালের পর থেকে কোটি টাকার এসব অ্যাকাউন্টের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে শুরু করেছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এই পরিসংখ্যান দিয়ে তেমন কিছুই বুঝা সম্ভব নয়। কারণ প্রথমত, বিদেশে টাকা পাচারের প্রবণতা বাড়ছে, দেশের কোনো ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে এই পরিমাণ টাকা না রেখে বিদেশে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তারপরও যাদের অ্যাকাউন্টে কোটির টাকার ওপর আছে তাদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমান কত, তা বলাই বাহুল্য। সুতরাং অ্যাকাউন্টে রাখা টাকা দিয়ে তার সম্পদের পরিমান আঁচ করা সম্ভব নয়।

bangladesh taka bundle

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) বিশেষ ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে যে সংখ্যা দেখানো হয়েছে, প্রকৃত সংখ্যা তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। অধিকাংশরাই তাদের সম্পদ আড়ালে রাখতে চায়। তাছাড়া গত কয়েক বছরে যে পরিমাণ সরকারি অর্থ নয়ছয়ের কথা আমরা শুনেছি, তাতে দেশে কোটিপতির সংখ্যা সাধারণের ধারণারও বাইরে।

sheikh mujib 2020