advertisement
আপনি দেখছেন

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণচেষ্টা ও পাশবিক নির্যাতনের ঘটনায় উত্তাল হয়ে উঠেছিল গোটা দেশ। এ নিয়ে তখন একাধিক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। তন্মধ্যে হাইকোর্ট থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়, আজ বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সেই কমিটি তাদের রিপোর্ট জমা দিয়েছে। তাতে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

bangladesh high court new 2019

হাইকোর্ট গঠিত তদন্ত কমিটির রিপোর্ট বলছে, ওই ঘটনায় জড়িত রয়েছে নির্যাতিত নারীর স্বামী। এ নিয়ে সুস্পষ্ট প্রমাণও পাওয়া গেছে। এছাড়া তদন্ত কমিটি গাফিলতি পেয়েছে স্থানীয় চেয়ারম্যান-মেম্বার ও থানার দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের। তাদের সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে তদন্ত কমিটি।

তদন্ত রিপোর্টটির বিষয়ে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ রাসেল চৌধুরী বলেন, প্রায় সব মিডিয়ায় প্রচার হয়েছে ওই গৃহবধূকে নির্যাতনের সময় স্বামীকে বেঁধে রাখা হয়েছিল। কিন্তু এই রিপোর্টে বেরিয়ে এসেছে ভিন্ন কথা। যে আসামিরা ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন তাদের সঙ্গে একটা যোগাযোগ ছিলো ওই ব্যক্তির (নির্যাতিত নারীর স্বামী)। এবার এই রিপোর্ট অনুযায়ী মামলা এগিয়ে নেওয়া হবে।

begumgonj model thana

উল্লেখ্য, গত ২ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের একলাশপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকায় এই বর্বর নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। ৩২ দিন পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিওটি ছাড়া হলে ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর গত ৪ অক্টোবর রাতে ৯ জনকে আসামি করে বেগমগঞ্জ থানায় দুটি মামলা দায়ের করেন নির্যাতিত ওই গৃহবধূ। ইতোমধ্যে ১০ আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

sheikh mujib 2020