advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ রোবাবর কোস্টগার্ডের এক অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা জানান। এ সময় উপকূল রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীটির জন্য ৯টি জাহাজ ও একটি ঘাঁটির উদ্বোধন করেন তিনি।

pm hasina coast guardপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। এ জন্য আমাদের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সবাইকে মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। তবে অর্থনীতি যেন সচল থাকে এবং মানুষের জীবন যেন থমকে না যায় সেজন্য সরকার সব ব্যবস্থা করেছে।

কোস্টগার্ড সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দুর্যোগকে সঙ্গে নিয়েই আমাদের চলতে হবে। সেজন্য সব ধরনের প্রস্তুতিও আমাদের থাকতে হবে।

bangladesh coast gaurd ship innerবাংলাদেশ কোস্টগার্ডে নতুন জাহাজ

এদিন কোস্টগার্ডের ৯টি জাহাজ ও একটি ঘাঁটির কমিশনিং অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে জাহাজের কমিশনিং ও বিসিজি বেস ভোলার উদ্বোধন করেন তিনি। এ জন্য গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় কোস্টগার্ড পূর্বাঞ্চলের বেস স্টেশনে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী।

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না এলে সমুদ্রসীমায় বাংলাদেশের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হতো মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এই সামুদ্রিক সম্পদকে কাজে লাগতে হবে।

coronaকরোনার ভ্যাকসিন, প্রতীকী ছবি

যে ৯টি জাহাজের কমিশনিং করা হয়েছে, তার মধ্যে ৪টি ইতালি থেকে কেনা হয়েছে। আর ৫টি নৌবাহিনী পরিচালিত নারায়ণগঞ্জ ও খুলনা শিপইয়ার্ডে তৈরি করা হয়।

ইতালি থেকে কেনা ৪টি অফশোর প্যাট্রল ভেসেলের নামকরণ করা হয়েছে জাতীয় চার নেতার নামে। সেগুলো হলো- বিসিজিএস সৈয়দ নজরুল, বিসিজিএস তাজউদ্দীন, বিসিজিএস মনসুর আলী এবং বিসিজিএস কামারুজ্জামান।

অন্যদিকে, নারায়ণগঞ্জ ও খুলনা শিপইয়ার্ডে তৈরি করা ভেসেলগুলো হলো- বিসিজিএস শ্যামল বাংলা, বিসিজিএস সবুজ বাংলা, বিসিজিএস সোনার বাংলা এবং বিসিজিএস অপরাজেয় বাংলা।

এ ছাড়াও আজ বিসিজিএস সোনাদিয়া ও বিসিজিএস কুতুবদিয়া নামে দুটি ফার্স্ট প্যাট্রল বোট কোস্টগার্ডের বহরে যুক্ত হবে। বাংলাদেশের উপকূলীয় সীমানা সুরক্ষায় কোস্টগার্ডের যাত্রা শুরু হয় ১৯৯৫ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি।

sheikh mujib 2020