advertisement
আপনি দেখছেন

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে এবং বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচার করে বিদেশে পালিয়ে থাকা প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারের এক হাজার কোটি টাকা জব্দ করা হয়েছে। তিনি ৬২ সহযোগীর মাধ্যমে অর্থপাচার করেছেন বলেও জানা গেছে।

pk haldarপ্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদার

আজ বৃহস্পতিবার দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এ সব তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে দুদকের পক্ষ থেকে বলা হয়, সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদার।

দুদক সচিব ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বিভিন্ন ব্যাংকে রাখা পি কে হালদারের প্রায় ১ হাজার ৬০ কোটি টাকা জব্দ করা হয়েছে।

dudok press conferenceকথা বলছেন দুদক সচিব ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার

এর আগে গত ২০ ডিসেম্বর দুদকের আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান জানান, সংস্থার তদন্তে পি কে হালদারের ৭০ থেকে ৮০ জন গার্লফ্রেন্ডের সন্ধান পাওয়া গেছে। এসব গার্লফ্রেন্ডের অ্যাকাউন্টে তার কোটি কোটি টাকা লেনদেনের তথ্য পেয়েছে দুদক।

প্রসঙ্গত, পি কে হালদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে যে, তিনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন। ইতোমধ্যে দুদক সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা পাচারের প্রমাণ পেয়েছে। যা নিজের ও বিভিন্ন আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধীর অ্যাকাউন্ট থেকে পাচার করা হয়েছে।

পি কে হালদার বর্তমানে বিদেশে পলাতক রয়েছেন। তিনি কানাডার বেগম পাড়ায় বিলাসবহুল বাড়ি নিয়ে বসবাস করছেন বলে সম্প্রতি দেশটির কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ সরকারকে জানিয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারে বাংলাদেশ পুলিশের আহ্বানে সম্প্রতি রেড অ্যালার্ট জারি করেছে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোল।

sheikh mujib 2020