advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে দেশে আসা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে সরকারের ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। আজ মঙ্গলবার এ তথ্য জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান।

drag administration dgভ্যাকসিন হাতে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান

রাজধানীর মহাখালীতে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ভারত থেকে আসা ভ্যাকসিন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেছে এগুলো নিরাপদ। তাই প্রথম চালানের ৫০ লাখ ডোজ ব্যবহারের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

ভ্যাকসিনের প্রতিটা লটের নমুনা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষা করা হয়েছে জানিয়ে মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেন, আগামীকাল বুধবার এগুলো দিয়েই ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি এই ভ্যাকসিন যুক্তরাজ্যের সর্বোচ্চ সংস্থা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সে দেশে এই টিকা আরো আগে থেকেই প্রয়োগ করা হচ্ছে। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ডে টিকা উৎপাদন করে। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে সেখানেও প্রয়োগ শুরু হয়েছে।

oxford vaccine india

এদিকে, দেশে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগের প্রাথমিক কার্যক্রম আগামীকাল বুধবার শুরু হতে যাচ্ছে। এদিন স্বাস্থ্যকর্মী থেকে শুরু করে বিভিন্ন পেশার ২৫ জনকে ভ্যাকসিন দেয়া হবে। কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি ভ্যাকসিনের ৭০ লাখ ডোজ ইতোমধ্যে দেশে এসে পৌঁছেছে। এর মধ্যে গত ২০ জানুয়ারি ভারত সরকারের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে এসেছে ২০ লাখ ডোজ। বাকি ৫০ লাখ গতকাল সোমবার এসেছে। এগুলো বাংলাদেশ সরকারের কেনা। এভাবে প্রতিমাসে ৫০ লাখ করে মোট ৩ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন আসবে।