advertisement
আপনি পড়ছেন

শোলাকিয়ায় দেশের সবচেয়ে বড় ঈদ জামাতে মওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদের ইমামতির বিষয়টি পূর্বনির্ধারিতই ছিলো। তিনি সেখানে গিয়েছিলেনও, কিন্তু নিরাপত্তার কারনে তিনি ইমামতি করতে পারেননি। তিনি গত দশ বছর ধরে এই ঐতিহাসিক ঈদ জামাতের ইমামতি করে আসছিলেন।

maulana farid uddin masud

মওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদ আজ সকাল নয়টার দিকে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকা থেকে কিশোরগঞ্জ স্টেডিয়ামে পৌছান। হেলিকপ্টার থেকে নামার সময় তিনি একটি বিকট আওয়াজ শুনতে পান। সঙ্গে থাকা নিরাপত্তা কর্মীরা বোমা নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে বলে ওনাকে জানান। পরে নিরাপত্তা কর্মীরা ওনাকে স্থানীয় সার্কিট হাউজে নিয়ে যান।

সেখানে গিয়ে তিনি টহল পুলিশের উপর হামলার বিষয়টি জানতে পারেন। এই হামলায় দুই পুলিশসহ মোট চারজন নিহত হয়। আহত হন বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য।

এমতাবস্থায় নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে পুলিশ প্রশাসন মওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদকে ঈদগাহে না যাওয়ার পরামর্শ দেন।

ঐতিহাসিক শোলাকিয়ায় এবারের ঈদ জামাতটি ছিলো ১৮৯তম। মাওলানা ফরিদউদ্দিন মাসউদের স্থলে এবারের ঈদ জামাতের ইমামতি করেন মাওলানা আবদুল রওফ বিন শোয়াইব।

আপনি আরো পড়তে পারেন

নিহত অল্পবয়সী যুবকের পোশাকে 'বিশেষ' পকেট

খালেদা: সরকারের ব্যর্থতা আর গাফিলতির কারণেই এসব ঘটছে

এরশাদ: ওরা ইসলামের শত্রু

শেখ হাসিনা: ঈদের নামাজ বাদ দিয়ে যারা মানুষ খুন করে, তারা মুসলমান না

শোলাকিয়ার কাছে বিস্ফোরণ-গুলি, পুলিশসহ নিহত ৪