advertisement
আপনি পড়ছেন

দেশে চলমান সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড রুখতে জুমার নামাজের খুতবাতে নজরদারি করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। পাশাপাশি খুতবায় কী কী বিষয়ে আলোচনা করা হয় সে বিষয়গুলোর উপর মনিটরিং করতে বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে।  

amir hosen amu minister

গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আইন-শৃংখলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন কমিটির সভাপতি ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ।

এ প্রসঙ্গে শিল্পমন্ত্রী বলেন, 'এখন থেকে শুক্রবার জুমার নামাজের বয়ান নজরদারি করা হবে। তাই যে ইমাম সাহেবরা খুতবা পড়বেন, তাদের প্রতি অনুরোধ থাকলো তারা যেন খুতবাতে প্রকৃত ধর্মীয় অনুশাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করেন। জঙ্গি হতে উস্কানী দেয় এমন কথা যেনো খুতবাতে না বলেন।'

এছাড়াও আইন-শৃংখলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার ওই বৈঠকে দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় করণীয় নির্ধারণে একটি বিশেষ কমিটি গঠন করে দিয়েছে সরকার।

এদিকে বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক শামীম মো: আফজাল দেশের সমস্ত মসজিদগুলোতে ভিন্ন-ভিন্ন খুৎবা না পড়ে জাতীয়ভাবে একটি খুৎবা পড়ার মত ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেন, একেক মসজিদে একেক রকম খুৎবা দেয়া হয়। সব ইমামের চিন্তাভাবনা একরকম নয়। খুতবার সময় বাংলা বক্তব্যে এমন অনেক রাজনৈতিক বিষয়ের অবতারণা করা হয় যা পরোক্ষভাবে জঙ্গি কার্যক্রমকে উস্কে দিতে পারে।

এই সমস্যা রোধে দেশের সংস্কৃতির সাথে মিল রেখে জাতীয়ভাবে একটি খুৎবা রচনা করার কথা বলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক। এই কাজে তিনি দেশের বিজ্ঞ আলেমদের সহায়তা চান।

আপনি আরো পড়তে পারেন 

নাসিম: নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত

রিজভী: সরকার জঙ্গিবাদকে জিইয়ে রাখতে চায়

মন্ত্রণালয়ের নির্দেশের আগেই পিস টিভি বন্ধ

কর্মস্থলে ফিরেছেন শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্ত