advertisement
আপনি দেখছেন

আলোচিত ইসলামী বক্তা মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে, তার প্রতিষ্ঠিত গাজীপুর মহানগরের বাড়িয়ালীর ‘মারকাজুন নূর আল ইসলামিয়া’ মাদ্রাসায় ঝুলছে তালা।

rafiqul madani madrasha locksমাদ্রাসার গেটে তালা, ইনসেটে রফিকুল মাদানীর ছবি

স্থানীয়রা বলছেন, মাদ্রাসাটির হাফেজ ছাত্রদের পাগড়ি প্রদান উপলক্ষে গত ২৫ মার্চ স্থানীয় বাড়িয়ালী-নলজানী ঈদগাহ ময়দানে শানে রিসালাত মহাসম্মেলন হয়। এতে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও পরিচালক রফিকুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন। এর পরদিন থেকে মাদ্রাসাটি বন্ধ রয়েছে।

তারা বলছেন, রফিকুল মাদানী গ্রেপ্তারের পর বাড়িয়ালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন মাদ্রাসাটির মূল ফটকে ভেতরের দিকে একাধিক তালা দেয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে তালা ঝুলতে দেখা যায়।

কে বা কারা এবং কবে তালা দিয়েছে, তা কেউ জানাতে পারেনি। এ ছাড়া মাদ্রাসার শিক্ষক ও ছাত্ররা কোথায় রয়েছেন, তাও বলতে পারছে না কেউ।

rafiqul islam madani jailমাওলানা রফিকুল ইসলামকে কারাগারে নেওয়া হচ্ছে, ছবি- সংগৃহীত

গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে তার নেত্রকোনার বাড়ি থেকে আটক করে র‌্যাব। এর পর থেকে গত ৩ দিনে মাদ্রাসাটিতে কাউকে প্রবেশ বা বের হতে দেখা যায়নি, বলছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

জানা গেছে, মাদ্রাসার ছাত্র ও শিক্ষকদের অধিকাংশই নেত্রকোনার। এক প্রবাসীর বাড়ি ভাড়া নিয়ে গত এক বছর ধরে মাদ্রাসাটি পরিচালনা করে আসছেন রফিকুল মাদানী। প্রতিষ্ঠানটিতে আবাসিক, অনাবাসিক ও ডে-কেয়ার রয়েছে; নুরানী মক্তব, নাযেরা, হিফজ বিভাগের পাশাপাশি প্লে থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানো হয়।

প্রসঙ্গত, রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রবিরোধী, উসকানিমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য দেওয়া এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগ রয়েছে। এই অভিযোগে গতকাল বুধবার রাতে তার বিরুদ্ধে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গাছা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে র‌্যাব। এর পর আজ বৃহস্পতিবার তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।