advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশব্যাপী চলছে ৭ দিনের ‘সর্বাত্মক লকডাউন’। প্রথম দিন আজ বুধবার রাজধানীজুড়ে এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। যান-মানবশূন্য সড়কের মোড়ে মোড়ে টহল দিচ্ছে পুলিশ, এ যেন অচেনা এক ভুতুড়ে ঢাকা।

dhaka in lockdownমোড়ে মোড়ে পুলিশ

এর আগে গত ৫ এপ্রিল থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও রাজধানীতে তার খুব একটা প্রভাব দেখা যায়নি। পরের দুই দিনও ছিল প্রায় একই ধরনের চিত্র। তবে লকডাউন শুরুর দিন আজ ব্যস্ত নগরীর সড়কে দেখা যায়নি যানবাহন, মানুষের ভিড়।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, মোড়ে মোড়ে দায়িত্ব পালন করছেন পুলিশসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। জরুরি প্রয়োজনে রিকশা, মোটরসাইকেল, মাইক্রোবাসসহ সীমিত যানবাহন চলছে। এসব গাড়ি থামিয়ে ‘মুভমেন্ট পাস’ চেক করে গন্তব্যে যেতে দেয়া হচ্ছে।

ভোর ৬টা থেকে শুরু হওয়া লকডাউনে অফিস ও গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ সংক্রান্ত সরকারি নির্দেশনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে থাকতে বলা হয়েছে। ফলে লোকজনকে রাস্তায় খুব একটা চোখে পড়েনি। এই অবস্থা চলবে আগামী ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত।

dhaka in lockdown 1ব্যস্ত সড়ক ফাঁকা

জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়া কয়েকজন জানান, গাড়ি বন্ধ থাকায় পায়ে হেঁটে এবং রিকশায় করে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে। পুলিশকে ‘মুভমেন্ট পাস’ না দেখাতে পারলে যেতে দেয়া হচ্ছে না, ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে বাসার দিকে।

এ বিষয়ে কাফরুল থানার এসআই মশিউর রহমান বলেন, সরকারি বিধিনিষেধ যথাযথভাবে বাস্তবায়নে কাজ করছে পুলিশ ও প্রশাসন। মুভমেন্ট পাস ছাড়া কাউকে যাতায়াত করতে দেয়া হচ্ছে না।

পুলিশের টহল গাড়ি, পণ্যবাহী ট্রাক, অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া খুব একটা যানবাহন দেখা যাচ্ছে না নগরীর রাস্তায়। অপ্রয়োজনে কোনো যান চলাচল করলে দেয়া হচ্ছে মামলা।

dhaka in lockdown 2লকডাউনে ফাঁকা ঢাকা

সরকার ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে সর্বাত্মক লকডাউন কঠোরভাবে বাস্তবায়নের কথা জানানো হয়েছিলো।

সবমিলিয়ে নতুন করে বিধিনিষেধ জারির গত ৯ দিনের চেয়ে আজকের ঢাকার সার্বিক চিত্র দেখা যায় একেবারেই ভিন্নতর। অনেকেই বলছেন, করোনাকালীন লকডাউনের কারণে আজকের ঢাকা যেন চেনাই যাচ্ছে না।