advertisement
আপনি দেখছেন

হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুকে ‘হত্যাকাণ্ড’ বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। সেইসঙ্গে এর সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন তিনি।

shafi hasanহাছান মাহমুদ ও আল্লামা শফী -ফাইল ছবি

আজ বুধবার নিজ বাসায় সীমিত পরিসরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ। এ সময় আল্লামা শফীর মৃত্যুতে বাবুনগরী ও মামুনুল হকসহ ৪৩ জনের বিরুদ্ধে পিবিআইর দেয়া অভিযোগপত্র নিয়ে কথা বলেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, মাওলানা শফীকে নির্যাতন করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়ায় জড়িতদের উপযুক্ত দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। তিনি আমার নির্বাচনী এলাকার একজন আলেম ছিলেন।

আহমদ শফীর মৃত্যুর নিয়ে পরিবারের করা মামলায় দীর্ঘ তদন্ত শেষে পিবিআই প্রতিবেদন জমা দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্যাতনে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে তাকে, এটি স্পষ্ট। পত্রপত্রিকায়ও বিষয়টি এসেছে।

allama babunagari chattagramহেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, ফাইল ছবি

হাটহাজারী মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা শফীর অসুস্থ অবস্থায় তার কক্ষ ভাংচুর করা হয়েছে মন্তব্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, হাসপাতালে নেবার পথে তার গাড়ি আটকে রাখা হয়। অক্সিজেন খুলে নেয়া হয়, অকথ্য গালিও দেয়া হয় তাকে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেয়া লকডাউন নিয়ে তিনি বলেন, জনগণকে রক্ষায় এ ব্যবস্থা দেয়া হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ ব্যবস্থা নেয়া হলেও বিএনপি উল্টো কথা বলছে। তারা চায়, সংক্রমণ আরো বাড়ুক, প্রতিদিন শত শত মানুষ প্রাণ হারাক।

এদিকে, আল্লামা শফীর মৃত্যুর ঘটনায় ‘হত্যার অভিযোগে’ করা মামলায় ৪৩ জনকে অভিযুক্ত করে গতকাল প্রতিবেদন জমা দেয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ওই প্রতিবেদনকে ‘ডাহা মিথ্যা’ বলে আখ্যায়িত করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।