advertisement
আপনি দেখছেন

আজ ১৭ এপ্রিল, ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। একাত্তরের এই দিনে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ গ্রহণ করে। এরপর বৈদ্যনাথতলাকে মুজিবনগর হিসেবে নামকরণ করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

bangladesh flag

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে আজ শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ধানমন্ডি-৩২ এ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এতে নেতৃত্ব দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এ সময় দলটির সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে এদেশের নিরস্ত্র মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে পাক হানাদার বাহিনী। শুরু হয় পরাধীনতার শৃঙ্খল ভাঙার লড়াই। এ লক্ষ্যে ১০ এপ্রিল স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠন করা হয়েছিল। সরকার গঠনের পরই আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠ করা হয়। ১৯৭০ সালের জাতীয় নির্বাচনে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত হয় গণপরিষদ।

নবগঠিত সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এদিন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণাকে অনুমোদন করে। ঘোষণায় বলা হয়, স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধান প্রণীত না হওয়া পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি এবং সৈয়দ নজরুল ইসলাম উপ-রাষ্ট্রপতি থাকবেন।

historical mujibnagar day today

সরকার গঠনের পর যেহেতু শপথ গ্রহণের বিষয় রয়েছে, তাই ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের সীমান্তবর্তী বৈদ্যনাথ তলার এক বিশাল আম্রকাননে অতি গোপনীয়তার সঙ্গে নবগঠিত স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের শপথ অনুষ্ঠিত হয়। প্রবাসী এই মুজিবনগর সরকারের দিক-নির্দশনা ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে মুক্তির সংগ্রাম প্রতিদিন নতুন গতিতে এগিয়ে যেতে থাকে।

ফলশ্রুতিতে ওই বছরের ১৬ ডিসেম্বর বিশ্ব মানচিত্রে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ নামে আরেকটি স্বাধীন ভূখণ্ড।