advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার কারণে সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের গন্তব্যে পৌঁছে দিতে বিশেষ ফ্লাইট চালু করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। সেবা চালুর দিনই একের পর এক ফ্লাইট বাতিলের কথা জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় সংস্থাটি।

biman bangladesh airlines 2বিমান বাংলাদেশের ফ্লাইট -ফাইল ছবি

বিমান জানায়, আজ শনিবার সকালের রিয়াদগামী একটি বিশেষ ফ্লাইটকে অবতরণের অনুমতি দেয়নি সৌদি কর্তৃপক্ষ। এতে বাধ্য হয়ে ফ্লাইটটি বাতিল করা হয়।

এরপর যাত্রী সংকটে আরো ৩টি ফ্লাইট বাতিলের কথা জানিয়েছে সংস্থাটি। এর মধ্যে দুটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই এবং একটি সৌদি আরবের দাম্মামে যাওয়ার কথা ছিল। এর পর আরো কিছু ফ্লাইট বাতিলের খবর পাওয়া গেছে। সব মিলিয়ে প্রথম দিনই ৭টি ফ্লাইট বাতিলের কথা জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম-পিআর) তাহেরা খন্দকার। তিনি বলেন, বাতিল হওয়া ফ্লাইটগুলোতে যাত্রীর সংখ্যা ছিল মাত্র ২০-২২ জন।

লকডাউনের কারণে ফ্লাইট চলাচল বন্ধের নির্দেশনা দেয়া হয়। এতে বাতিল হওয়া ফ্লাইটের যাত্রীরা পড়ে যান বিপাকে। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে তাদের টিকিট পরিবর্তন করে বিশেষ ফ্লাইটে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

biman bangladesh motizilমতিঝিলে বিমান অফিসে ভিড়

এদিকে, টিকিটের জন্য কারওয়ান বাজারের সৌদি এয়ারলাইন্স ও মতিঝিলে বিমান কার্যালয়ে ভিড় করছেন প্রবাসীরা। আজ শনিবার সকাল থেকে তারা এতটাই ভিড় করেন যে, চাপ সামলাতে না পেরে সাময়িকভাবে টিকিট বিক্রি স্থগিত করতে হয় বিমানকে।

টিকিটের অপেক্ষায় থাকা প্রবাসীরা জানান, ফ্লাইট বন্ধের কারণে তাদের অনেকেরই ফ্লাইট এরইমধ্যে বাতিল হয়ে গেছে। ফলে বিশেষ ফ্লাইট চালুর খবরে তারা আশান্বিত হয়েছেন। কিন্তু টিকিট বিক্রির শুরুর দিন বিমান অফিসের বেহাল দশা।

সর্বাত্মক লকডাউনে আটকে পড়া প্রবাসীদের যাতায়াতে আজ শনিবার থেকে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সপ্তাহে শ’খানেক ফ্লাইট চালুর অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।