advertisement
আপনি দেখছেন

করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকারের জারি করা বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল ফিতরকে সামনে রেখে বাড়ি ফিরছে মানুষ। এ সময় স্বাস্থ্যবিধি না মানার ‘ফল’ আগামী ১৪ দিনের মধ্যেই পাওয়া যাবে বলে মন্তব্য করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে আজ শনিবার হতাশাও ব্যক্ত করেছেন তিনি।

farhad hossain

এ সময় ঈদ উদযাপনে বাড়ি ফেরাদের সতর্ক করে তিনি বলেন, যারা নির্দেশ অমান্য করে ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন, পরিণতির জন্য তারা যেন সরকারকে দায়ী না করেন।

সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার সব চেষ্টা করেছে উল্লেখ করে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, পরিস্থিতি বিবেচনায় নিষেধাজ্ঞা, কঠোর লকডাউন দেয়া হয়েছে। এটি সবার মেনে চলা উচিত।

মানুষের সুবিধার কথা বিবেচনা করে উদ্যোগ নেয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা কথা দিলেও তা রাখছেন না। এমনকি পরিস্থিতি দেখেও তারা শিখছে না, এটা হতাশার বিষয়।

গত কয়েক দিন ধরে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরিঘাটে ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা যায়। গতকাল শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে যাত্রীদের কারণে ফেরিতে গাড়ি পরিবহন করা যায়নি। এমনকি একটি ফেরিতে প্রায় ১২০০ যাত্রীর পদ্মা পার হওয়ার খবর আসে।

crowds shimulia ferry terminal

দুটি নৌরুটের ফেরিতেই স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে যাত্রীদের গাদাগাদি করে পার হতে দেখা গেছে। অনেকের মুখে মাস্কও দেখা যায়নি এ সময়। এর ফলে করোনার সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এমন অবস্থায় শুক্রবার মাঝরাতে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে বন্ধ ঘোষণা করা হয় ফেরি চলাচল। কিন্তু হাজার হাজার মানুষের চাপে নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও ফেরি চালাতে বাধ্য হয় কর্তপক্ষ।

এ কারণে আগামীকাল রোববার সকাল থেকে দেশের ফেরিঘাটগুলোতে বিজিবি মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আজ শনিবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিআইডব্লিউটিসি চেয়ারম্যান সৈয়দ মো. তাজুল ইসলাম।