advertisement
আপনি দেখছেন

দীর্ঘ এক মাসের সিয়াম সাধনার পর দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদের নামাজ পড়তে মসজিদে মসজিদে ঢল নেমেছে মুসুল্লিদের। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে এটি তৃতীয় ঈদ। গত বছরের ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহাও করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই অনুষ্ঠিত হয়েছে।

people perform eid prayer in mosques

ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররামে। এরপর সাড়ে সাতটা, আটটা এবং সাড়ে আটটার মধ্যেই বেশির ভাগ মসজিদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

করোনাভাইরাস মহামারির বিস্তার রোধে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করে মুসুল্লিরা নামাজ আদায় করেন। বেশির ভাগ মসজিদেই শত শত মুসুল্লি মাস্ক পরে নামাজে অংশগ্রহণ করেন।

গত বছর মসজিদে বা ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় নিয়ে সামান্য কড়াকড়ি ছিলো। কিন্তু এ বছর সে রকম কিছু না থাকলেও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে নামাজ আদায় ও মসজিদে অবস্থানকালীন সময়ে মেনে চলার জন্য বিশেষ নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

ঈদের নামাজ সাধারণত ঈদগাহে পড়ার রীতি থাকলেও এ বছর করোনাভাইরাস মহামারির কারণে মসজিদে নামাজ পড়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিলো। সে অনুযায়ীই সারা দেশের মুসুল্লিরা মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

যাতায়াতের কড়াকড়ির কারণে বহু মানুষ এবার রাজধানীতেই ঈদ পালন করছেন। অবশ্য কড়াকড়ির মধ্যে গ্রামের বাড়িতেও ফিরে গেছেন বহু মানুষ।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে সাত লাখের বেশি মানুষ এবং এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন অন্তত ১২ হাজার।

গত চার সপ্তাহের বেশি সময় ধরে দেশে করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে নানা রকমের বিধিনিষেধ চলছে। এর মধ্যেই পবিত্র ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হচ্ছে।