advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে চলমান চতুর্থ দফা লকডাউনের মধ্যেই দূরপাল্লার গণপরিবহন বন্ধ রেখেই পালিত হলো পবিত্র ঈদুল ফিতর। এবার দূরপাল্লার যাত্রীবাহী পরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

shahjahan khan in position

ঈদের আগে সংবাদ সম্মেলন করে দূরপাল্লার গণপরিবহন চালুর দাবিতে বিক্ষোভের হুমকি দিয়েছিলেন বাস মালিক-শ্রমিকরা। এ সংক্রান্ত ৫ দফা দাবিতে ঈদের দিন আজ শুক্রবার সকাল ১০-১২টা পর্যন্ত রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালের সামনে ​অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়।

ঢাকা মহানগর সড়ক প‌রিবহন শ্র‌মিক ইউ‌নিয়নের কর্মসূচিতে দ্রুত দূরপাল্লার যানবাহন চালুর দাবি জানিয়েছেন পরিবহন শ্র‌মিক নেতা শাজাহান খান। তিনি বলেন, বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে মানুষ গ্রামে গেছে আবার ফিরেও আসবে। তাদের দু‌র্ভোগ কমা‌তে গণপরিবহন চালু করা জরুরি।

সাবেক এই নৌমন্ত্রী বলেন, ২০১৪-১৫ সা‌লে সরকারবি‌রোধী‌ আন্দোলনে পরিবহন শ্রমিকরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মাঠে ছিল। তখন প্রণোদনা দেয়া হয়েছিল, তা আমরা স্বীকার করছি।

long distance buses

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শাজাহান খান আরো বলেন, পরিবহন শ্রমিকরা অতীতে সরকা‌রের পা‌শে ছিল, এখনো আছে এবং আগামী‌তেও থাক‌বে।

এর আগে গত ৮ মে জাতীয় প্রেস ক্লাবে যৌথভাবে সংবাদ সম্মেলন করে ৫ দফা দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছিল। সংগঠন দুটি হলো- বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন।